ঢাকা শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ১০:৫৭ পূর্বাহ্ন

বাইশে শ্রাবণ আজ: উঠিবে অক্ষয় হয়ে নব নব রসে: রবীন্দ্রনাথ

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট, ২০১৯
বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। ছবি: সংগৃহীত

বাঙালির জীবনের প্রতিটি মর্মকথা, চলন, বলন, আবেগ-অনুভূতিতে মিশে আছেন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। বলা হয়- বাঙালি তখনই প্রকৃত বাঙালি হয়ে ওঠে, যখন তার ভেতরে রবীন্দ্রনাথ বাসা বাঁধেন।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তো সেই জন, যিনি বাঙালিকে বিশ্বের কাছে বিস্তৃত করেছেন, মর্যাদার আসনে আসীন করেছেন। তার অজস সৃষ্টিকর্মের মধ্য দিয়েই তৈরি হয়েছে বাঙালি জাতির মানসপট। আজ ২২শে শ্রাবণ। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৮তম প্রয়াণ দিবস।

১৯৪১ সালের ৬ আগস্ট বাংলা ১৩৪৮ সালের ২২ শ্রাবণ কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়িতে বর্ষণমুখর দিনে মৃত্যুকে আলিঙন করেন বিশ্বকবি।

আর তাই তো তিনি লিখেছেন- ‘মৃত্যু দিয়ে যে প্রাণের/ মূল্য দিতে হয়/ সে প্রাণ অমৃতলোকে/ মৃত্যুকে করে জয়।’ বিশ্বকবি জন্ম-মৃত্যুর মাঝে খুব সামান্যই তফাত দেখেছেন।

তাই তো নৈবেদ্য কাব্যগ্রন্থে ‘মৃত্যু’ কবিতায় তিনি বলেন, ‘মৃত্যু অজ্ঞাত মোর/ আজি তার তরে/ ক্ষণে ক্ষণে শিহরিয়া কাঁপিতেছি ডরে/ এত ভালোবাসি/ বলে হয়েছে প্রত্যয়/ মৃত্যুরে আমি ভালো/ বাসিব নিশ্চয়’।

অন্য এক কবিতায় রবীন্দ্রনাথ বলেছেন- ‘প্রেম-আকর্ষণে/ যত গূঢ় মধু মোর অন্তরে বিলসে/ উঠিবে অক্ষয় হয়ে নব নব রসে,/ বাহিরে আসিবে ছুটি- অন্তহীন প্রাণে/ নিখিল জগতে তব প্রেমের আহ্বানে/ নব নব জীবনের গন্ধ যাবো রেখে/ নব নব বিকাশের বর্ণ যাবো এঁকে।’

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের হাত ধরেই বাংলা সাহিত্য নতুন রূপ লাভ করে। গল্প, উপন্যাস, কবিতা, প্রবন্ধে তিনি তুলে আনেন চিরায়ত বাঙালিকে। নতুন সুরে ও বিচিত্র গানের বাণীতে বাঙালির আবেগ-অনুভূতিকে অম্লান করে তোলেন।

অসাধারণ সব দার্শনিক চিন্তাসমৃদ্ধ প্রবন্ধে- সমাজ ও রাষ্ট্রনীতিসংলগ্ন গভীর জীবনবাদী চিন্তাজাগানিয়া তত্ত্ব ও তথ্য উপস্থাপন করেছেন তিনি। এমনকি চিত্রকলায়ও রবীন্দ্রনাথ চিরনবীন। তিনি ছিলেন একাধারে কবি, নাট্যকার, কথাশিল্পী, চিত্রশিল্পী, গীতিকার, সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক, গল্পকার ও ভাষাবিদ। জীবনের শেষ পর্যায়ে তিনি চিত্রকর হিসেবেও খ্যাতি অর্জন করেন।

তার কাছ থেকেই আমরা পেয়েছি আমাদের জাতীয় সঙ্গীত ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি।’ ‘গীতাঞ্জলি’ কাব্যগ্রন্থের জন্য প্রথম এশীয় হিসেবে ১৯১৩ সালে তিনি সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাংলা ১২৬৮ সালের ২৫ বৈশাখ (ইংরেজি ১৮৬১ সালের ৮ মে) কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন।

বিশ্বকবির ৭৮তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আজ বিকালে একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে একক বক্তৃতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

অনুষ্ঠানে একক বক্তৃতা প্রদান করবেন অধ্যাপক সৈয়দ আজিজুল হক। সভাপতিত্ব করবেন জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। বিটিভিসহ বিভিন্ন স্যাটেলাইট চ্যানেল ও বেতারেও সম্প্রচার করা হবে বিশ্বকবির প্রয়াণ দিবসের নানা অনুষ্ঠান।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর