ঢাকা শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৩৪ অপরাহ্ন

মন্ত্রীর প্রটোকলের এএসআই বোমায় আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও প্রতিনিধি, ঢাকা মেডিকেল
  • প্রকাশিত: রবিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
সায়েন্স ল্যাব মোড়ে পুলিশের ওপর বোমা হামলার পর ঘটনাস্থল নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে ঘিরে রাখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ছবি: তানভীর আহমেদ

রাজধানীর সায়েন্স ল্যাব এলাকায় বোমা বিস্ফোরণে দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এর মধ্যে একজন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলামের প্রটোকলের দায়িত্বে ছিলেন। শনিবার (৩১ আগস্ট) রাত সোয়া নয়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। কে বা কারা হামলা চালিয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি।

আহত দুই পুলিশ সদস্য হলেন সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শাহাবুদ্দিন (৩৫) ও কনস্টেবল আমিনুল (৪০)। এএসআই শাহাবুদ্দিন মন্ত্রীর প্রটোকলের দায়িত্বে ছিলেন। তাঁদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঢাকা মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, এএসআই শাহাবুদ্দিনের দুই পায়ে আঘাত লেগেছে। আর কনস্টেবল আমিনুল হাতে আঘাত পেয়েছেন।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল বলেন, তিনি তেজগাঁওয়ের নিজের কার্যালয় থেকে সায়েন্স ল্যাব মোড় দিয়ে সীমান্ত স্কয়ারে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। সায়েন্স ল্যাব মোড়ে যানজট দেখে প্রটোকলের দায়িত্বে থাকা এএসআই শাহাবুদ্দিন সেখানে থাকা ট্রাফিক পুলিশের সঙ্গে কথা বলতে যান। এরই মধ্যে গাড়ি চলা শুরু করে। তাঁর গাড়ি সায়েন্স ল্যাব মোড় অতিক্রম করার সময় বিস্ফোরণের শব্দ হয়। তিনি সীমান্ত স্কয়ারে পৌঁছার পর জানতে পারেন এএসআই শাহাবুদ্দিন হামলায় আহত হয়েছেন।

ডিএমপির ধানমন্ডি অঞ্চলের উপকমিশনার আবদুল্লাহেল কাফি বলেন, আহত এএসআই শাহাবুদ্দিন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলামের প্রটোকলের দায়িত্বে ছিলেন। সোয়া নয়টার দিকে মন্ত্রীর গাড়ি সায়েন্স ল্যাব মোড় হয়ে ধানমন্ডির দিকে যাচ্ছিল। ওই মোড়ে পুলিশ বক্সের সামনে ওই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আইইডি (ইম্পোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস) বিস্ফোরণে পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। এর আগে রাজধানীর মালিবাগ ও গুলিস্তানের পুলিশকে লক্ষ্য করে হামলার সঙ্গে এর সামঞ্জস্যতা রয়েছে।

রাত ১১টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশকে লক্ষ্য করে এই হামলা চালানো হয়েছে। সড়ক বিভাজক ও বেড়া থাকায় সরাসরি পুলিশ বক্সে বোমা ছুড়তে ব্যর্থ হয়েছে হামলাকারীরা। তিনি আরও বলেন, রাজধানীর হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার পর থেকে জঙ্গি নির্মূলে পুলিশ ব্যাপক অভিযান চালিয়েছে। সেই ক্ষোভ থেকে পুলিশের ওপর হামলা হচ্ছে।

এর আগে ২৩ জুলাই রাজধানীতে দুটি পুলিশ বক্সের কাছে বোমা ফেলে রাখার ঘটনা ঘটে। এ ছাড়া ৩০ এপ্রিল গুলিস্তানে ট্রাফিক পুলিশকে লক্ষ্য করে হাতবোমা ছোড়া হয় ২৬ মে মালিবাগে পুলিশের এসবি (বিশেষ শাখা) কার্যালয়ের সামনে একটি পিকআপে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনাতে দায় স্বীকার করে বিবৃতি দেয় আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: