ঢাকা বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন

মিয়ানমারের সঙ্গে আমরা ঝগড়া বাঁধাতে যাইনি: প্রধানমন্ত্রী

ঈশ্বরদীনিউজ২৪.নেট, প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল, ২০১৯
ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মরণে সরকার প্রতি বছর বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এই পুরস্কার দিয়ে আসছে।
ছবি: বাসস

মিয়ানমারের সঙ্গে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেই রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাসসের এক প্রতিবেদনে জানা যায়, বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় পরিদর্শনকালে উপস্থিত কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে এ কথা বলেন তিনি।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়েরও দায়িত্বে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, “আমরা আলোচনা করেছি, চুক্তি সম্পাদন করেছি এবং তাদের (মিয়ানমার) সঙ্গে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে এদেরকে (রোহিঙ্গা) নিজ দেশে ফেরত পাঠানোটাই আমাদের লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য নিয়ে আমরা এখনো কাজ করে যাচ্ছি। মিয়ানমারের সঙ্গে আমরা ঝগড়া বাঁধাতে যাইনি।”

চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বভার গ্রহণ করে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় পরিদর্শনের অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার প্রথমবারের মতো প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে যান শেখ হাসিনা।

“সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়।” বাংলাদেশের এই পররাষ্ট্রনীতি উল্লেখ করে বলেন, “আমি এটাই বলব মিয়ানমার যেহেতু আমাদের প্রতিবেশী। আমরা কখনো তাদের সঙ্গে সংঘাতে যাব না।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বরং তাদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে তাদের নাগরিকদের তারা যেন ফিরিয়ে নিয়ে যায় সেই প্রচেষ্টাই আমাদের অব্যাহত রাখতে হবে। সে বিষয়ে সবাই যেন সেভাবেই দায়িত্ব পালন করেন, সেজন্যও আমি অনুরোধ করব।”

কেবল মানবিক কারণেই রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে বলেন, “আমরা মানবিক কারণেই এটা করেছি। নিজেদেরও বলতে গেলে রিফিউজি হিসেবে ’৭৫ এর পরে ৬ বছর বিদেশে অবস্থান করতে হয়েছে। দুঃখজনক হলেও সত্য, নিজের নামটাও আমরা ব্যবহার করতে পারিনি। এরকম দিনও আমাদের মোকাবেলা করতে হয়েছে।”

মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের শরণার্থীরা ভারতে আশ্রয় গ্রহণ করেছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আমাদের নিজেদেরই অভিজ্ঞতা রয়েছে যে, ১৯৭১ সালে আমাদের ১ কোটি মানুষ শরণার্থী হিসেবে ছিল। তাদেরকে নিয়ে এসে পুনর্বাসন করতে হয়েছে, সেই অভিজ্ঞতাও রয়েছে।”

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: