ঢাকা সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ০৬:৫৩ অপরাহ্ন

বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট ছাড়ছে জমিয়ত?

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা
  • প্রকাশিত: বুধবার, ৩০ জুন, ২০২১
জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম। ছবি: সংগৃহিত

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের একটি শরিক দলের ওপর জোট ছাড়ার চাপ সৃষ্টি হয়েছে। এর অংশ হিসেবে গত ২৭ জুন সিলেটের আঞ্চলিক কওমি বোর্ডের দুই জন শীর্ষ কর্মকর্তা পদত্যাগ করেছেন, যারা এই শরিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলামেরও নেতা। দলটিতে আলোচনা উঠেছে, বিএনপি-জোট থেকে বেরিয়ে এলে কারাগারে থাকা আটক নেতাদের মুক্তিতে সহায়ক হবে। এ বিষয়ে পক্ষে-বিপক্ষে জমিয়তে দুটি মত সৃষ্টি হয়েছে।

জমিয়তের একপক্ষ চাইছে নেতাদের মুক্তি নিশ্চিত করতে সরকারের চাওয়া-পাওয়াকে প্রাধান্য দিতে। দ্বিতীয় পক্ষটি কোনও চাপে পড়ে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের বিপক্ষে। তারা এখন জোট ছাড়তে সম্মত নয়।

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম এখন দুই ভাগে বিভক্ত। উভয় অংশ বিএনপি-জোটের শরিক। ‘ভারপ্রাপ্ত’ হয়ে একটি অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন মাওলানা জিয়া উদ্দীন (ভারপ্রাপ্ত সভাপতি) ও মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া (ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব)। এই অংশের সভাপতি শায়খ আবদুল মোমিন গত বছর মারা গেলে মাওলানা জিয়াউদ্দিন ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পান। এরপর এ বছর করোনা আক্রান্ত হয়ে নূর হোসাইন কাসেমীর ইন্তেকালের পর ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব হন মুঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দি, যিনি গত এপ্রিল থেকে হেফাজতের বিরুদ্ধে নাশকতার মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। আফেন্দির অনুপস্থিতিতে ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করছেন মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া। ভারপ্রাপ্ত দুই নেতাই বিএনপি-জোট ছাড়ার পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন বলে জমিয়তে আলোচনা আছে।

জমিয়তের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, জমিয়তের প্রথম সারির বেশ কয়েকজন নেতা গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন জুনায়েদ আল হাবিব, শাহীনুর পাশা চৌধুরী, মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দি, মনির হোসেন কাসেমী, খালিদ সাইফুল্লাহ সাদী ও মোহাম্মদ উল্লাহ জামী।

জমিয়তের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রের দাবি, জুনায়েদ আল হাবিব ও মনির হোসেন কাসেমী ছাড়া বাকিদের মুক্তির বিষয়টি ত্বরান্বিত করতে জোট-ছাড়ার বিষয়টি কাজে দেবে, এমনটি মনে করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে জমিয়তের সহ-সভাপতি আবদুর রব ইউসুফী  বলেন, ‘একটি সরকার যখন দেশ পরিচালনা করে, তার বিপক্ষে-পক্ষে থাকা একটি সাংবিধানিক বিষয়। আর রাজনৈতিকভাবেও কোনও জোট স্থায়ী না—জোট গড়ে জোট ভাঙে, এটা স্বাভাবিক। তবে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিতে হলে স্বাভাবিক কৌশল ও নীতিতে আগানোই শ্রেয়তর। তা না হলে দেশের রাজনৈতিক পরিবেশও ঠিক থাকে না।’

দলের আরেক নায়েবে আমির বলেন, ‘পচা মাল দিয়ে সরকার কী অর্জন করতে চাইবে। রাজনৈতিক বেনিফিট চাইলে রাজনৈতিকভাবে বোঝাপড়া করতে হবে। তারা সহযোগিতা চাইলে ভিন্ন কথা।’

জমিয়তের জোট থেকে বেরিয়ে আসার বিষয়ে দলটির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বাহাউদ্দিন জাকারিয়া  বলেন, ‘জোট ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে এখনই কিছু বলতে চাই না। এটা নিয়ে সিদ্ধান্তমূলক বক্তব্য আসবে দলের। আলোচনা বিভিন্ন ধরনের হতেই পারে। ফলে আমি এখনই কোনও বক্তব্য দিতে পারি না।’

বাহাউদ্দিন জাকারিয়া জানান, জমিয়তের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হবে কিছু দিন পর। পরিবেশ অনুকূলে এলে দলের মজলিসে আমেলার বৈঠক করে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তবে জমিয়তের আরেক প্রভাবশালী নেতা সহ-সভাপতি উবায়দুল্লাহ ফারুক বলেন, ‘দলের মেরুকরণের কিছু নেই। কয়েকজন আলাপ করছে হয়তো। কিন্তু আমরা জোটে আছি, জোটেই থাকবো। তবে যারা মনে করে নেতাদের মুক্তি হবে, তারা প্রতারিত হচ্ছেন।’

গত ২৭ জুন সিলেটে আজাদ দীনি এদারার পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন জেলা জমিয়তের সহ-সভাপতি ইউসুফ খাদিমানি। ওই বোর্ডে রাজনৈতিক নেতাদের দায়িত্ব পালনে নিরুৎসাহিত করতে একটি পক্ষ সক্রিয় হওয়ার কারণেই তিনি বোর্ড থেকে বেরিয়ে আসতে বাধ্য হন, এমন দাবি বোর্ডের এক সদস্যের।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বুধবার (৩০ জুন) বিকালে ইউসুফ খাদিমানি  বলেন, ‘‘পদত্যাগের কারণ হিসেবে আমি চিঠিতে লিখেছি—‘অনিবার্য কারণে পদত্যাগ করছি।’ এছাড়া আমি কোনও বক্তব্য দিতে চাই না। বোর্ডে বিঘ্নতা সৃষ্টির আশঙ্কা থেকে আমি সরে দাঁড়িয়েছি। আমি জমিয়তের সমর্থক হিসেবে আছি।’’

জমিয়তের দ্বিতীয় অংশটির নেতৃত্বে রয়েছেন মাওলানা মনসুরুল হাসান রায়পুরী (ভারপ্রাপ্ত সভাপতি) ও মাওলানা ড. গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম (মহাসচিব)। এই অংশের সিনিয়র নেতারা জানান, তারা জোট ছাড়ার বিষয়ে কোনও আলোচনা বা চাপে নেই।

এই অংশের সভাপতি ছিলেন মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস। এ বছরের ৩১ মার্চ তিনি করোনায় মারা যান। মৃত্যুর আগে বেশ কয়েকবার তিনি আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যুর বিষয়ে তদন্তের দাবি করেছিলেন। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে জমিয়তের পৃথক নেতৃত্ব দেওয়া শুরু করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের নির্বাচনের পর থেকেই ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নিষ্ক্রিয় করে রেখেছে বিএনপি।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666