ঢাকা শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৪২ পূর্বাহ্ন

‘২৪ কারখানাকে পুরস্কার দেবে সরকার’

ঈশ্বরদীনিউজ২৪.নেট, প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: শনিবার, ২৭ এপ্রিল, ২০১৯
সচিবালয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান

 

এ বছর পেশাগত স্বাস্থ্য ও কারখানার সেইফটিতে বিশেষ অবদান রাখায় ২৪টি কারখানাকে পুরস্কার প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। রোববার (২৮ এপ্রিল) ‘জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবস’ এ পুরস্কারপ্রাপ্ত কারখানা মালিকদের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেয়া হবে।

শনিবার (২৭ এপ্রিল) দুপুরে সচিবালয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে দিবসটি উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান। এ সময় মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব উম্মুল হাসনাসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কারখানা মালিক এবং শ্রমিকদের মধ্যে পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এ বিষয়ে মালিকদের আগ্রহ সৃষ্টির উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার গত বছর থেকে ‘পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি উত্তম চর্চা পুরস্কার’ প্রবর্তন করেছে। সেই লক্ষ্যে এ বছর বিভিন্ন খাতের ২৪টি কারখানাকে পুরস্কারের জন্য মনোনিত করেছি। জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবসের অনুষ্ঠানে পুরস্কারপ্রাপ্ত কারখানা মালিকদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। 

দেশে বর্তমান সময়ে পোশাক শিল্পে কোন সংকট নেই উল্লেখ করে মন্নুজান সুফিয়ান বলেন, সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে এবং এ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দ্ব্যর্থহীনভাবে বলতে চাই, যে কোন শ্রমিকের স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং নিরাপদ কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করতে যা কিছু প্রয়োজন সব কিছু করবে সরকার।

তিনি বলেন, ২০৪১ সালের উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ এবং ২০৩০ সালের এসডিজি লক্ষ্যমাত্রাকে সামনে রেখে পেশাগত স্বাস্থ্য এবং নিরাপত্তার গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সামনে এসেছে। ২২৬২ গার্মেন্টস কারখানায় সেইফটি কমিটি গঠন করে দিয়েছি এবং যে কোন প্রকার বিরোধ নিষ্পত্তিতে আমরা মালিক-শ্রমিকদের সামাজিক সংলাপের পরামর্শ দিচ্ছি। পোশাক শিল্পের লক্ষ লক্ষ শ্রমিকের স্বার্থের কথা বিবেচনা করে ২০১৭ সালে শুধু গার্মেন্টস শিল্পের জন্য আলাদা ত্রিপক্ষীয় কমিটি গঠন করেছি। শ্রমিকের যে কোন সমস্যা সংক্রান্ত অভিযোগ গ্রহণ, নিষ্পত্তি ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদানের জন্য সার্বক্ষণিক বিনা খরচে হেল্প লাইন ১৬৩৫৭ চালু করেছি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, পোশাক শ্রমকিদরে নিম্নতম মজুরি ৮ হাজার টাকায় উন্নীত করা হয়েছে। বাস্তবায়ন পর্যায়ে দু’একটি ধাপে মজুরি সমন্বয়ে জটিলতা দেখা দেয়ার কারণে আমরা মালিক-শ্রমিক প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে মজুরি সমন্বয় করে গেজেট করে দিয়েছি। গার্মেন্টসের মজুরি বাস্তবায়নে এখন কোন সমস্যা নেই। তারপরও সার্বক্ষণিক শ্রম পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তাদের সদস্য করে ২৯টি পর্যবেক্ষণ কমিটি গঠন করে দিয়েছি। কমিটিতে ঘোষিত মজুরি কাঠামো বাস্তবায়নসহ শ্রম সংশ্লষ্টি যে কোন সমস্যা মনিটরিং করাসহ সকল সমস্যা সমাধান করবে। 

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: