ঢাকা মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:১৫ অপরাহ্ন

ডেঙ্গুর শঙ্কা চেপে ঈদ উৎসবে বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১২ আগস্ট, ২০১৯
ফাইল ছবি

ঈদুল আজহায় কোরবানির মধ্য দিয়ে নিজের ভেতরের কলুষতাকে বলি দেওয়া ইসলামের শিক্ষা। বিশ্বের মুসলমানদের সবচেয়ে বড় এই ধর্মীয় উৎসব বাংলাদেশে পরিচিত কোরবানির ঈদ নামে।

সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সমাজে শান্তি ও কল্যাণের পথ রচনা করতে সংযম ও ত্যাগের মানসিকতায় উজ্জীবিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

আর ঈদুল আজহার মর্মবাণী অন্তরে ধারণ করে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সবাইকে বৈষম্যহীন, সুখী ও সমৃদ্ধ, বাংলাদেশ গড়ে তোলার কাজে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশে ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে সোমবার। যদিও মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ ও আমেরিকার মুসলমানরা রোববারই ঈদ উদযাপন করেছেন।

রাজধানীর লাখ লাখ বাসিন্দা আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে গত কয়েকদিনে চলে গেছেন গ্রামে। ফলে ঢাকা এখন অনেকটাই ফাঁকা।

এবারের ঈদযাত্রায় সড়ক ও রেলপথে উত্তরের যাত্রীদের সঙ্গী হয়েছে ভোগান্তি। রেলের সূচি বিপর্যয়ে ঈদের আগে তিন দিনই ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে যাত্রীদের অপেক্ষা করতে হয়েছে দীর্ঘ সময়। আর ঢাকা-টাঙ্গাইল সড়কের যানজট বাসের যাত্রীদের পথের কষ্ট দীর্ঘায়িত করেছে।

এমন এক সময় এবারের কোরবানির ঈদ এসেছে যখন দেশজুড়ে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে মশাবাহিত রোগ ডেঙ্গু। ঈদযাত্রায় মানুষের সঙ্গী হয়ে ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশা আরও বেশি ছড়িয়ে পড়েছে কি না- সেই শঙ্কাও আছে।

অন্তত সাড়ে আট হাজার মানুষকে ঈদের দিনও দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গুর চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। প্রাণঘাতি ডেঙ্গু এবার কেড়ে নিয়েছে শতাধিক পরিবারের ঈদের আনন্দ।

ডেঙ্গু মোকাবেলায় দেশের সব সরকারি হাসপাতালে জরুরি স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ সার্বক্ষণিক সেবা চালু রাখার নির্দেশনা দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

হাসপাতালে কর্মরত সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে বাধ্যতামূলকভাবে কর্মস্থলে অবস্থান করার নির্দেশনা দিয়ে অধিদপ্তর চিকিৎসকদের রোস্টারভিত্তিক উপস্থিতি নিশ্চিৎ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সরকারি হাসপাতালে সার্বক্ষণিক চালু থাকবে ডেঙ্গু হেল্প ডেস্ক। নির্দেশনা এসেছে ডেঙ্গু রোগ নির্ণয়ের সব ধরনের পরীক্ষা ও ব্লাড ব্যাংক যেন চালু থাকে।

বরাবরের মত এবারও দেশে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত হয়েছে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে, সকাল ৮টায়। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, মন্ত্রিসভার সদস্য, সংসদ সদস্য, রাজনীতিবিদসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ এই জামাতে নামাজ পড়বেন।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ জাতীয় ঈদগাহে এক লাখ মানুষের নামাজের ব্যবস্থা করেছে। নারীদের জন্যও রাখা হয়েছে নামাজ পড়ার ব্যবস্থা।

বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদে এবারও পাঁচটি জামাত হবে। প্রথম জামাতটি হবে সকাল ৭টায়। পর্যায়ক্রমে সকাল ৮টা, ৯টা, ১০টা এবং ১০টা ৪৫ মিনিটে পরের জামাতগুলো হবে।

নামাজ পড়তে যাওয়ার সময় জায়নামাজ বা ছাতা ছাড়া অন্য কিছু বহন না করতে নগরবাসীকে পরামর্শ দিয়েছে ঢাকার মহানগর পুলিশ।

প্রতি বছরের মতো এবারও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় দেশের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়েছে। সকাল সাড়ে ৮টায় এ জামাতে ইমামতি করবেন কিশোরগঞ্জ শহরের মারকাজ মসজিদের ইমাম মাওলানা হিফজুর রহমান খান।

ঈদের দিন সকালে নামাজের পর সবাই ব‌্যস্ত হয়ে যাবেন পশু কোরবানি করতে। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম যত দ্রুত সম্ভব পশুর হাটের আবর্জনা ও অস্থায়ী স্থাপনা পরিষ্কার করবেন বলে কথা দিয়েছেন নগরবাসীকে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এ বছর মহাখালী পশু জবাইখানাসহ ২৭৩টি স্থানে পশু কোরবানির ব্যবস্থা করেছে। এছাড়া কোরবানি করা যাবে এ রকম ৪০০টি স্থান চিহ্নিত করে দিয়েছে। রাস্তার ওপর কিংবা ড্রেনের পাশে পশু জবাই না করার জন্য বিশেষ সচেতনতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

কোরবানির বর্জ্য অপসারণের জন্য বিশেষ পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের আওতায় উত্তর সিটির নিজস্ব ২৪০০ এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৪৩৫ জন পরিচ্ছন্নতা কর্মী কাজ করবেন।

আরও ১১০০ পরিচ্ছন্নতা কর্মী এবং বাসা-বাড়ি থেকে ভ্যান সার্ভিসের মাধ্যমে বর্জ্য সংগ্রহ করার জন্য প্রায় ৪ হাজার ৫০০ জন শ্রমিক কোরবানির বর্জ্য অপসারণে নিয়োজিত থাকবেন।

উত্তর সিটির পক্ষ থেকে এবার পশু কোরবানির জন্য ১০০ জন ইমাম এবং ২০০ জন মাংস প্রস্তুতকারীকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

মহাখালী পশু জবাইখানায় যারা কোরবানির পশু নিয়ে আসবেন, তাদের পশু জবাই ও মাংস প্রস্তুত বাবদ ২৫ শতাংশ খরচ সিটি করপোরেশন বহন করবে বলে জানিয়েছেন মেয়র।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এবার ৬০২টি স্থান পশু কোরবানির জন্য নির্ধারণ করে দিয়েছে। সিটি করপোরেশনের ৫২৪১ জন কর্মীর পাশাপাশি ১২৫২ জন কর্মীকে অস্থায়ীভাবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে কোরবানির বর্জ্য অপসারণের জন্য। পাশাপাশি কোরবানির পশুর হাট পরিষ্কারের কাজে থাকবেন আরও ১৯৫৪ জন।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঈদের দিন দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

বরিশাল, খুলনা ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায়, ঢাকা ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

সকালে বৃষ্টি হলে ঈদের নামাজ পড়তে গিয়ে বিড়ম্বনায় পড়তে হবে মানুষকে। আবার পশু কোরবানি ও মাংস প্রস্তুতের কাজটিও কঠিন হয়ে যাবে। তবে বিকালের ভাগে বৃষ্টি হলে কোরবানির পশু বর্জ্য অপসারণের কাজ অনেক সহজ হয়ে যাবে।

এবার কোরবানির পশুর হাটে প্রচুর বড় আকারের গড়ু উঠলেও ছোট ও মাঝারি গরুর চাহিদা ছিল বরাবরের মতই বেশি। শুরুতে দাম চড়া থাকলেও শেষে এসে দাম পড়ে যাওয়ায় হতাশার কথা শোনা গেছে ব্যাপারীদের মুখে।

ঈদের বাণীতে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেছেন, “বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য দৃষ্টান্ত। আবহমানকাল থেকে বাংলাদেশে সকল ধর্মের মানুষ স্বাধীনভাবে নিজ নিজ ধর্ম ও আচার-অনুষ্ঠানাদি জাঁকজমকের সাথে পালন করে আসছে। এটা আমাদের সম্প্রীতির এক অনুপম ঐতিহ্য।

“এই ঐতিহ্যকে সমুন্নত রেখে দেশ ও জাতির কল্যাণে তা কাজে লাগাতে হবে। সকল ধর্মের মূল বাণী হচ্ছে মানবকল্যাণ। কোনো ধর্মই সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, অশান্তি ও বিশৃঙ্খলা সমর্থন করে না। কোরবানির শিক্ষা ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে প্রতিফলিত হোক – এ প্রত্যাশা করি।”

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, “প্রতি বছর এ উৎসব পালনের মধ্য দিয়ে স্বচ্ছল মুসলমানগণ কোরবানিকৃত পশুর গোশত আত্মীয়-স্বজন ও গরিব-দুঃখীর মধ্যে বিলিয়ে দিয়ে মানুষে-মানুষে সহমর্মিতা ও সাম্যের বন্ধন প্রতিষ্ঠা করেন।”

প্রতিবারের মতো এবারও ঈদ ধনী-গরিব নির্বিশেষে সকলের জীবনে সুখ ও আনন্দের বার্তা বয়ে আনবে- এই প্রত্যাশা করেন প্রধানমন্ত্রী।

বরাবরের মতো এবারও ঈদের দিন সকালে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। তার আগে সকাল ৮টায় হাই কোর্টের সামনে জাতীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করবেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেলা ১১টা থেকে গণভবনে দলীয় নেতা-কর্মী, বিচারক ও বিদেশি কূটনীতিকসহ সর্বস্তরের জনগণের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন।

দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার টানা চতুর্থ ঈদ এবার কাটবে অন্তরীণ অবস্থায়। তার অনুপস্থিতিতে সোমবার দুপুরে জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত করবেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতারা।

ঈদ উপলক্ষে সোমবার সরকারি ও বেসরকারি গুরুত্বপূর্ণ ভবনগুলোতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, ছোটমনি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, আশ্রয়কেন্দ্র, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রগুলোতে বিশেষ খাবার পরিবেশন করা হবে।

ঈদ উপলক্ষ সরকারি-বেসরকারি টেলিভিশন চ্যালেনগুলো কয়েকদিন ধরে প্রচার করছে বিশেষ অনুষ্ঠান। সংবাদপত্রগুলোও এ উপলক্ষে বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করেছে।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: