ঢাকা রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ০৫:২১ অপরাহ্ন

রমজানে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ভেজালরোধে মোবাইল কোর্ট

ঈশ্বরদীনিউজ২৪.নেট, প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল, ২০১৯

মাহে রমজানে নগরবাসীর নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার পাশাপাশি ভেজালমুক্ত খাবার নিশ্চিত করতে ও খাবারে যে কোনো ভেজাল প্রতিরোধ করতে কাজ করবেন মোবাইল কোর্ট বা ভ্রাম্যমাণ আদালত। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তত্ত্বাবধানে ভ্রাম্যমাণ আদালত সক্রিয় থাকবে।

 বৃহস্পতিবার ডিএমপি হেডকোয়ার্টার্সে রমজান ও পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন উপলক্ষে ঢাকা মহানগর এলাকার সার্বিক নিরাপত্তা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিশেষ সমন্বয় সভায় এ কথা বলেন ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে কমিশনার বলেন, অতীতের মতো এবারও রমজান ও ঈদে ঢাকা মহানগরীজুড়ে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভেজাল খাদ্য প্রতিরোধে মোবাইল কোর্ট বা ভ্রাম্যমাণ আদালত সক্রিয় থাকবে সারাক্ষণ। ছিনতাই, চাঁদাবাজি, অজ্ঞান ও মলমপার্টি প্রতিরোধে সাদা পোশাকে ও ইউনিফর্মে পুলিশের বিশেষ টিম মোতায়েন থাকবে। বিভিন্ন শপিংমলে পুলিশি নিরাপত্তার পাশাপাশি মার্কেটের নিরাপত্তার জন্য মার্কেট মালিক সমিতিকে সিসিটিভি, আর্চওয়ে, নিজস্ব সিকিউরিটি, এক্সেস কন্ট্রোল মেশিনসহ নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করার আহ্বান জানানো হয়েছে। তা ছাড়া মহানগরীর বাস টার্মিনাল, লঞ্চ ঘাট ও রেলস্টেশনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হবে।

নগদ টাকা পরিবহনে ব্যবসায়ীদের সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করার জন্য পুলিশের মানি এস্কর্ট সেবা গ্রহণ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন কমিশনার। তা ছাড়া মার্কেটে জাল টাকা প্রতিরোধে শনাক্তকারী মেশিন রেখে সন্দেহজনক টাকা পরীক্ষা করতে ব্যবসায়ীদের পরামর্শ দেন তিনি।

পবিত্র রমজানে জনসাধারণ যাতে নিরাপদে ইফতারের আগে নিজ গন্তব্যে পৌঁছাতে পারে সে লক্ষ্যে ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগের গুরুত্বের সহিত কাজ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে তিনি বলেন, সুষ্ঠুভাবে ইন্টারসেকশন ম্যানেজমেন্ট বাস্তবায়ন করা অর্থাৎ ইন্টারসেকশনে কোনো গাড়ি জটলা করে থাকবে না, নির্ধারিত স্থানে গাড়ি পার্কিং, শপিংমলের সামনে বা আশপাশে যানবাহন পার্কিং বন্ধ রাখা, ফুটপাত হকারমুক্ত রাখা, ফুটপাতে গাড়ি পার্কিং না করা এবং মোটরসাইকেল চলতে না পারে সে ব্যবস্থা করা, রিকশা-ভ্যান ঠেলাগাড়ি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় উঠতে দেওয়া যাবে না। এ সব বিষয়াদি নিবিড় তদারকির জন্য পিক আওয়ারে ঊর্ধ্বতন পুলিশ অফিসার রাস্তায় থেকে যানজট নিয়ন্ত্রণে কাজ করবে বলেও জানান তিনি।

ঈদে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে বাস মালিক সমিতিকে সক্রিয় থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ড্রাইভারের লাইসেন্স ও গাড়ির ফিটনেস পরীক্ষা করে গাড়ি টার্মিনাল থেকে বাহির করতে হবে। লক্কড়ঝক্কড় গাড়ি রাস্তায় নামানো যাবে না। বাস মালিক সমিতি ও পুলিশের সমন্বয়ে টিকিট কালোবাজারিদের প্রতিরোধ করা হবে। টার্মিনালের প্রবেশ ও বাইরের পথে জটলা কমাতে পর্যাপ্তসংখ্যক কমিউনিটি পুলিশ মোতায়েনের কথাও জানান তিনি।

রাস্তায় গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক রাখতে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন, ওয়াসাসহ অন্য সেবাদানকারী সংস্থাকে নতুন করে কোনো রাস্তা না খুঁড়তে ও পুরাতন খোঁড়া রাস্তা দ্রুত মেরামত করার অনুরোধ জানান কমিশনার।

সমন্বয় সভায় উপস্থিত ছিলেন ডিএমপির ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ গোয়েন্দা সংস্থা, ফায়ার সার্ভিস, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সেবাদানকারী সংস্থা, দোকান মালিক সমিতি, বাস মালিক সমিতি, লঞ্চ মালিক সমিতি, বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনসহ বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666