ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ০১:১৯ অপরাহ্ন

পুলিশের ভয়ে মাটির নিচে, কাঠের গুড়ার ভেতর লুকিয়ে রাখা হয় সরকারি চাল

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত: রবিবার, ১২ এপ্রিল, ২০২০
ভোলার লালমোহন উপজেলার এক ইউপি সদস্যের ঘরের খাটের নিচে মাটি খুঁড়ে লুকিয়ে রাখা সাত বস্তা চাল উদ্ধার করে পুলিশ।

ভোলার লালমোহন উপজেলায় আত্মসাৎ করা সরকারি চাল পুলিশের ভয়ে বিভিন্ন উপায়ে লুকিয়ে রাখা হচ্ছে। বসত ঘরের মাটির নিচ থেকে, এমনকি কাঠের গুড়ার ভেতর থেকেও পুলিশি অভিযানে বেরিয়ে আসছে এসব চাল।

রবিবার (১২ এপ্রিল) সকালে সর্বশেষ উপজেলার বদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৫ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো. জুয়েলের ঘরের খাটের নিচে মাটি খুঁড়ে লুকিয়ে রাখা সাত বস্তা চাল উদ্ধার করে লালমোহন থানা পুলিশ।

এছাড়াও ওই ওয়ার্ডের চৌকিদার শাহে আলমের ঘর থেকে আরও ছয় বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়। এসব চাল সরকারি খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির বলে জানা গেছে।

অভিযুক্ত ইউপি সদস্য জুয়েল আত্মগোপন করলে তার বাবা সাবেক সদস্য মো. নান্নুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করেছে।

লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর খায়রুল কবীর বলেন, “রবিবার সকাল ৬টার দিকে ৯৯৯ নম্বরে ফোন পাই, বদরপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য জুয়েলের ঘরে মাটির নিচে চাল লুকিয়ে রাখা হয়েছে। পরে আমরা ওই বাড়িতে অভিযান চালাই। এসময় জুয়েলের ঘরের খাটের নিচ থেকে মাটি খুঁড়ে পাঁচ বস্তা ও ঘরের পেছন থেকে আরও দুই বস্তা চাল উদ্ধার করি।”

ওসি আরও জানান, “জুয়েলকে না পাওয়ায় তার বাবা নান্নুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। একই সঙ্গে সরকারি খাদ্য অধিদপ্তরের নাম লেখা সাতটি খালি বস্তা ও সাতটি খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির কার্ড পাওয়া যায় ওই ঘর থেকে।”

জানা গেছে, শনিবার একই ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো. ওমরের এলাকার বিভিন্ন বাড়িতে ও স-মিলের কাঠের গুড়ার মধ্যে লুকিয়ে রাখা আরও ১৫ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফরিদুল হক তালুকদার, তার ভাতিজা ওয়ার্ড সদস্য ওমরসহ চারজনকে আসামি করে মামলা করা হয়। ওমরকে গ্রেফতার করলে জেল হাজতে পাঠায় আদালত।

এদিকে, বদরপুর ইউনিয়নে পুলিশের অভিযানের খবর পেয়ে সরকারি চাল লুকানোর হিড়িক পড়েছে বলে জানা গেছে।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২০
 
themebaishwardin3435666