ঢাকা বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৩ পূর্বাহ্ন

বল হাতে বিধ্বংসী সৌম্য

ঈশ্বরদীনিউজ২৪.নেট, প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৪ এপ্রিল, ২০১৯
সৌম্য সরকার। ফাইল ছবি

 

ব্যাট হাতে যথারীতি ধারাবাহিকতার অভাব বজায় রাখলেও ইদানিং বল হাতে বেশ ভালোই করছেন সৌম্য সরকার। জাতীয় দল বলুন আর ঘরোয়া লিগ, বোলার সৌম্যের একটা চাহিদা আছে। চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে আজ বৃহস্পতিবার আবাহনীর হয়ে এই তরুণ মিডিয়াম পেসার ১০ ওভার বোলিং করে মাত্র ৩৪ রান দিয়ে তুলে নিয়েছেন ৪ উইকেট। তার বোলিং কারিশমায় প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাবকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে আবাহনী।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং বেছে নেয় আবাহনী। প্রথমে ব্যাট করার সুযোগ ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারেনি প্রাইম দোলেশ্বর। ২৭ রানে ২ উইকেট হারায় তারা। এরমধ্যে ১টি করে উইকেট নেন আবাহনীর মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। 

দুই ওপেনার ব্যর্থ হলেও, মিডল-অর্ডারের পাঁচ ব্যাটসম্যানের ছোট ছোট ইনিংসে লড়াকু সংগ্রহের পথ পায় প্রাইম দোলেশ্বর। কিন্তু আবাহনীর চতুর্থ বোলার হিসেবে আক্রমণে এসে পুরো ১০ ওভার বোলিং করে ৩৪ রানে ৪ উইকেট নিয়ে প্রাইম দোলেশ্বরকে ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২২৪ রানের বেশি করতে দেননি সৌম্য। ফরহাদ হোসেন ৪৭, তাইবুর রহমান ৪১, মার্শাল আইয়ুব ৪০, সাদ নাসিম ৩৪ ও সৈকত আলী ২৩ রান করেন। সৌম্য ছাড়াও আবাহনীর পক্ষে মাশরাফি ২টি ও সাইফউদ্দিন-মিরাজ-সাব্বির ১টি করে উইকেট নেন।

জবাবে ২২৫ রানের লক্ষ্যে ছুটতে গিয়ে শুরুতেই বিপদে পড়ে আবাহনী। স্কোর বোর্ডে ২৩ রান উঠতেই ৩ ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফিরেন। বল হাতে সফল সৌম্য ১০ রানের বেশি করতে পারেননি। নাজমুল হোসেন শান্ত ও ভারতের প্রিয়াঙ্ক কিরিত পাঞ্চালতো রানের খাতাই খুলতে পারেননি। এরপর শুরুর ধাক্কাটা ভালোভাবে সামলে উঠেন জহিরুল ও পাঁচ নম্বরে নামা মোহাম্মদ মিথুন। চতুর্থ উইকেটে ৬৩ রানের জুটি গড়েন দুজন।

মিথুন ব্যক্তিগত ৪০ রানে থামলেও ব্যাট হাতে হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন জহিরুল। মিথুনের পর সাব্বির ২৪ ও অধিনায়ক মোসাদ্দেক ২ রান করে ফিরলে ম্যাচ নিয়ে চিন্তায় পড়ে যায় আবাহনী। দলীয় ১৩৫ রানে ৬ষ্ঠ উইকেট হারানো আবাহনী তখন জয় থেকে ৯০ রান দূরে। এ অবস্থায় সর্তক ব্যাটিং শুরু করেন জহিরুল, সাথে যোগ দেন আট নম্বরে নামা সাইফউদ্দিন।

দ্রুত নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া গড়ে তুলে রানের গতি বাড়াতে থাকেন তারা। তাই ম্যাচও হাতে মুঠোয় চলে আসতে থাকে আবাহনীর। শেষ পর্যন্ত অবিচ্ছিন্ন ৯২ রানের জুটি গড়ে আবাহনীকে তৃপ্তি জয় এনে দেন জহিরুল ও সাইফউদ্দিন।জহিরুল ১২৭ বলে ১০টি চারে অপরাজিত ৯১ ও সাইফউদ্দিন ৬৯ বলে অপরাজিত ৫৫ রান করেন। তার ইনিংসে ৭টি চার ছিল। ম্যাচ সেরা হয়েছেন জহিরুল। এই জয়ে ৯ ম্যাচে ৮ জয় ও ১ হারে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে এগিয়ে থেকে টেবিলের শীর্ষস্থান সংহত করল আবাহনী।

 

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: