ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৯ পূর্বাহ্ন

শিরোপা বাঁচানোর লড়াইয়ে রোনালদোদের বাধা এমবাপ্পে-গ্রিজমান

খেলার সংবাদ
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৫ মার্চ, ২০২০
আবার এভাবে উল্লাস করতে পারবেন রোনালদো? ছবি : এএফপি

অর্থহীন প্রীতি ম্যাচ না খেলতে উয়েফা চালু করেছিল নেশনস লিগ। সে লিগের প্রথম সংস্করণে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। শিরোপা জয়ের পথে তারা হারিয়েছিল ভার্জিল ফন ডাইক-ম্যাথিস ডি লিটের নেদারল্যান্ডসকে। এবার দ্বিতীয় সংস্করণে গ্রুপ ও ম্যাচের সময়সূচি প্রকাশ করল উয়েফা। আমস্টারডামে এক অনুষ্ঠানে আগামী নেশনস লিগের গ্রুপিং চূড়ান্ত করা হয়েছে।

মোট ৫৫ দলকে চারটি লিগে ভাগ করা হয়েছে। শীর্ষস্থানীয় ১৬ দল চার গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলবে ‘এ’ লিগে। শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে রোনালদোরা গ্রুপপর্বে পাচ্ছেন কিলিয়ান এমবাপ্পে-আতোয়াঁন গ্রিজমানদের বিশ্বজয়ী ফ্রান্সকে। ‘এ৩’ গ্রুপের বাকি দুই দল ২০১৮ বিশ্বকাপের ফাইনালিস্ট ক্রোয়েশিয়া ও সুইডেন। অর্থাৎ এবার নেশনস লিগে ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া বিশ্বকাপ ফাইনালের পুনরাবৃত্তি দেখা যাবে। যে লড়াইয়ে ফ্রান্সকে হারালে হয়তো বিশ্বকাপ জয়ের আনন্দ পাওয়া যাবে না, কিন্তু মদরিচ-রাকিতিচরা অন্তত ‘দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাতে’ পারবেন!

‘এ১’ গ্রুপে গতবারের রানার্সআপ নেদারল্যান্ডস সঙ্গী হিসেবে পেয়েছে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালি, বসনিয়া-হার্জেগোভিনা ও পোল্যান্ডকে। ২০১৮ বিশ্বকাপ না খেলতে পারা ইতালি গত এক বছর ধরে দুর্দান্ত ফর্মে। নেশনস লিগেও তারা সে উন্নতির ধারাটা বজায় রাখতে চাইবে। রবার্ট লেবান্ডফস্কি-ক্রিস্তফ পিওন্তেকের পোল্যান্ড কিংবা মিরালেম পিয়ানিচ-এডিন জেকোর বসনিয়া-হার্জেগোভিনা রয়েছে নেদারল্যান্ডস-ইতালির কাজটা কঠিন করার জন্য।

‘এ২’ গ্রুপে রাখা হয়েছে গত বিশ্বকাপের দুই সেমিফাইনালিস্ট ইংল্যান্ড ও বেলজিয়ামকে। তাঁদের সঙ্গী ডেনমার্ক ও গত ইউরোয় ইংল্যান্ডকে বিদায় করে দিয়ে চমক সৃষ্টি করা আইসল্যান্ড। একমাত্র ‘এ৪’ গ্রুপেই আছে দুটি বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দল। ২০১০ বিশ্বকাপজয়ী স্পেন ও তিনবারের বিশ্বজয়ী জার্মানি খেলবে এই গ্রুপেই। গ্রুপে আরও রয়েছে ২০১০ বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই স্পেনকে হারানো সুইজারল্যান্ড। বাকি দলটি ইউক্রেন।

‘এ’ এর পরের লিগ ‘বি’। এই লিগেও খেলবে ১৬ দল, চার গ্রুপে ভাগ হয়ে। গ্যারেথ বেলের ওয়েলস, ডেভিড আলাবার অস্ট্রিয়া, গত বিশ্বকাপে স্পেনকে বিদায় করা রাশিয়া, তাদিচ-মিলিঙ্কোভিচ সাভিচদের সার্বিয়া সবাই খেলবে ‘বি’ লিগে। এই লিগের গ্রুপগুলো হলো—

বি১ : অস্ট্রিয়া, নরওয়ে, উত্তর আয়ারল্যান্ড, রোমানিয়া
বি২ : চেক প্রজাতন্ত্র, স্লোভাকিয়া, স্কটল্যান্ড, ইসরায়েল
বি৩ : রাশিয়া, সার্বিয়া, তুরস্ক, হাঙ্গেরি
বি৪ : ওয়েলস, ফিনল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, বুলগেরিয়া

‘সি’ লিগেও আছে ১৬ দল। ২০০৪ ইউরোজয়ী গ্রিস, ইয়ান ওবলাকের স্লোভেনিয়া, স্টেভান ইয়োভেটিচ, সাভিচের মন্টিনিগ্রোর মতো দলগুলো খেলবে এখানে।

সি১ : মন্টিনিগ্রো, সাইপ্রাস, আজারবাইজান, লুক্সেমবোর্গ
সি২ : জর্জিয়া, এস্তোনিয়া, আর্মেনিয়া, উত্তর মেসিডোনিয়া
সি৩ : গ্রিস, কসোভো, স্লোভেনিয়া, মলদোভা
সি৪ : আলবেনিয়া, কাজাখস্তান, বেলারুশ, লিথুয়ানিয়া

একদম নিচে দুর্বলতম দলগুলো নিয়ে গড়া হয়েছে ‘ডি’ লিগ। এই লিগে চারটা গ্রুপ নেই, ১৬ দলও নেই। এখানে দল আছে ৭টা, যাদের ভাগ করা হয়েছে দুই গ্রুপে।

ডি১ : ফারো আইল্যান্ড, লাটভিয়া, মাল্টা, অ্যান্ডোরা
ডি২ : জিব্রাল্টার, সান মারিনো, লিখটেনস্টেইন

প্রতি গ্রুপে সবচেয়ে কম পয়েন্ট পাওয়া দলটা অবনমিত হবে নিচের লিগে। ‘এ’ লিগের চার গ্রুপের শীর্ষ চার দল লড়বে সেমিফাইনালে। সেখান থেকে ফাইনালে ওঠা দুই দল লড়বে উয়েফা নেশনস লিগের শিরোপা অর্জনের জন্য। ‘বি’, ‘সি’ ও ‘ডি’ লিগের গ্রুপগুলোর শীর্ষ দলগুলো ওপরের লিগে উঠে যাবে পরের আসরে। ‘ডি’ গ্রুপের দলগুলোর কোনো অবনমন নেই।

দেখা যাক, রোনালদোদের হাত থেকে শিরোপা এবার কারা নিতে পারেন না কি রোনালদোরাই শিরোপা রক্ষা করেন!

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: