ঢাকা সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৪৯ অপরাহ্ন

বিয়ে করলেন অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের দুই সমকামী নারী ক্রিকেটার

ঈশ্বরদীনিউজ২৪.নেট, প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৯
ছবি: টুইটার

সবুজ ঘাস, সুইং বল, মাঠচেরা ড্রাইভের জীবনটিকে সঙ্গে করেই এই দুজন হাত মেলালেন বাউন্ডারির ওপারের জীবনটিতেও। যেখানে আঙুল তোলার জন্য কোনও আম্পায়ার দাঁড়িয়ে নেই।

প্রেম কোনও সীমান্ত মানে না, মানে না লিঙ্গ কিংবা ধর্মপরিচয়ও। ইতিহাস বলে একটি প্রেমের ফলে বদলে গিয়েছে যুদ্ধ কিংবা মহাকাব্যের চরিত্র। তবে সব প্রেমকাহিনী যে সমাজ মেনে নেয় তা কিন্তু নয়। তবু ধ্বংসস্তূপের মধ্যে থেকেই যেমন জন্ম হয় একটি ফুলকুঁড়ির, মৃত্যু উপত্যকায় যেমন আসতে কখনও ভুল করে না বসন্তের চিরকালীন বাতাস, তেমনই বহু বিদ্বেষ ও বিরোধিতার মধ্যেও ভালোবাসা থেকে যায় একটি অনিবার্য প্রতিবাদ হয়েই।

অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের মধ্যে প্রকট না হলেও বৈরীতা বিরাজমান। কিন্তু দুই দেশের দুই নারী ক্রিকেটারের মধ্যে সম্পর্ক ছিল দীর্ঘদিন ধরেই। সেই সম্পর্ক পরিণয় পেয়েছে বিয়ের মাধ্যমে। এই বিয়ে যেন জন্ম দিলো নতুন এক রূপকথার।

নিজেদের ভালোবাসাকে সাক্ষী রেখে গত সপ্তাহে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার হেইলি জেনসেন আর অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটার নিকোলা হ্যানকক।

বিগ ব্যাশ নারী লিগের প্রথম দুই পর্বে অল-রাউন্ডার হেইলি জেনসেন খেলেছেন ‘মেলবোর্ন স্টার্স’-এর হয়ে। এবার এই লিগের তৃতীয় পর্বে তিনি খেলছেন ‘মেলবোর্ন রেনেগেডস’-এর হয়ে। অন্যদিকে, অস্ট্রেলিয়ান টি-টোয়েন্টি লিগে ‘টিম গ্রিন’-এর হয়ে খেলছেন নিকোলা হ্যানকক।

টুইটারে এই নবদম্পতির ছবি শেয়ার করেছে ‘মেলবোর্ন স্টার্স’। ছবিটি শেয়ার করার পরই, তাদের দুজনের উদ্দেশে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসতে থাকে শুভেচ্ছার বার্তা। আনন্দের বার্তা।

উল্লেখ্য, ২০১৭-১৮ মৌসুমে ভিক্টোরিয়া উইমেনস প্রিমিয়ার ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় সেরা খেলোয়াড় হিসেবে ‘উমা পেইজলি’ পদক জেতেন হেইলি জেনসেন। ২০১৪ সালে হোয়াইট ফার্নসদের হয়ে নিজের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় তার। মেলবোর্ন ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে প্রথম নারী ক্রিকেটার হিসাবে শতরান করার কৃতিত্বও একমাত্র তারই দখলে।

অন্যদিকে, মেলবোর্ন স্টার্সের হয়ে নারীদের বিগ ব্যাশ লিগে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেটধারী হলেন নিকোলা হ্যানকক। ১৪ ম্যাচে ১৩’টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। 

প্রসঙ্গত, নিউজিল্যান্ডে ২০১৩ সালের ১৯ আগস্ট সমকামী বিয়ে আইনি স্বীকৃতি পায়।

সবুজ ঘাস, সুইং বল, মাঠচেরা ড্রাইভের জীবনটিকে সঙ্গে করেই এই দুজন হাত মেলালেন বাউন্ডারির ওপারের জীবনটিতেও। যেখানে আঙুল তোলার জন্য কোনও আম্পায়ার দাঁড়িয়ে নেই।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর