ঢাকা সোমবার, ০৩ অগাস্ট ২০২০, ০৩:১৩ অপরাহ্ন

করোনায় ঈশ্বরদীর কৃতীসন্তান আমিনুল ইসলামের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০
আমিনুল ইসলাম। ফাইল ছবই

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বগুড়া পল্লী উন্নয়ন একাডেমির (আরডিএ) মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) এবং ঈশ্বরদীর কৃতীসন্তান মো. আমিনুল ইসলাম মারা গেছেন।

আজ শনিবার (১১ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

আরডিএ’র সহকারী পরিচালক নুসরাত জাহান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘গত ২৩ জুন বগুড়ার টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আমিনুল ইসলামের করোনা শনাক্ত হয়। এরপর তিনি রাজশাহীতে স্ত্রী ও সন্তানদের কাছে চলে যান।’

মো. আমিনুল ইসলাম ৮ম বিসিএস এর মাধ্যমে প্রশাসন ক্যাডারে ১৯৮৯ সালের ২০ ডিসেম্বর যোগদান করেন। সুদীর্ঘ চাকরি জীবনে তিনি সহকারী কমিশনার, সহকারী কমিশনার (ভূমি), উপজেলা নির্বাহী অফিসার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, জেলা প্রশাসক, স্থানীয় সরকারের পরিচালক, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে মাঠ প্রশাসনে এবং উপ-সচিব হিসেবে খাদ্য মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসক হিসেবে তিন বছরেরও অধিককাল অত্যন্ত সুনাম ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি জনকল্যাণমূলক কর্মকাণ্ডেও সমানভাবে সক্রিয়। তিনি সামাজিক আন্দোলন স্কাউটিং কার্যক্রমের সাথে নিবিড়ভাবে যুক্ত। তিনি স্কাউটস এর একজন লিডার ট্রেইনার। তিনি বিগত পাঁচ বছর যাবত বাংলাদেশ স্কাউট রাজশাহী অঞ্চলের আঞ্চলিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

মো. আমিনুল ইসলাম ১৯৬২ সালে ঈশ্বরদী উপজেলার ইক্ষু-গবেষণা ইনস্টিটিউটে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা ছবির উদ্দিন ও মাতা আছিয়া বেগম।

মো. আমিনুল ইসলাম ঈশ্বরদী উপজেলার অরোনকোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা সম্পন্ন করেন। তিনি সাঁড়া মাড়োয়ারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি এবং সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ, পাবনা থেকে এইচএসসি পাস করেন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি পরিসংখ্যানে বিএসসি (সম্মান) ও এমএসসি ডিগ্রি অর্জন করেন। উভয় পরীক্ষাতেই তিনি প্রথম স্থান লাভ করেন। ১৯৯০ সালে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেলোশিপ নিয়ে এমফিল করেন। উল্লেখ্য যে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হওয়ার পর তিনিই প্রথম ব্যক্তি যিনি পরিসংখ্যান বিভাগ থেকে ফেলোশিপ ও এমফিল ডিগ্রি লাভ করেন।

পরবর্তীতে কর্মরত অবস্থায় তিনি ঢাকার সাভারস্থ BPATC, শাহবাগস্থ প্রশাসন একাডেমি, ইউনিসেফ রাজশাহী, বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমি (ভাটিয়ারি, চট্টগ্রাম), NILG ঢাকা, RDA বগুড়া, BARD কুমিল্লা, UNDP, UNCDF, IDB ভবন আগারগাঁও, ঢাকা স্থানীয় সরকার শক্তিশালীকরণে অংশগ্রহণমূলক পদ্ধতিতে পরিকল্পনা প্রণয়ন সংক্রান্ত ও শিশুদের প্রারম্ভিক বিকাশ বিষয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।

এছাড়া তিনি ম্যাট কোর্সে চৌত্রিশ ব্যাচের প্রশিক্ষণার্থী হিসেবে সিঙ্গাপুর সিভিল সার্ভিস কলেজে উচচতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২০
 
themebaishwardin3435666