ঢাকা শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:০৪ অপরাহ্ন

ঈশ্বরদীতে খাদ্যে ভেজালের কারণ ও প্রতিকার কর্মশালা অনুষ্ঠিত

আশরাফুল ইসলাম সবুজ
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৯
ঈশ্বরদীতে খাদ্যে ভেজালের কারণ ও প্রতিকার কর্মশালা অনুষ্ঠিত।

ঈশ্বরদীতে খাদ্যে ভেজালের কারণ ও প্রতিকার শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (১৯ অক্টোবর) সকালে উপজেলার বাংলাদেশ সুগারক্রপ গবেষণা ইনস্টিউটের (বিএসআরআই) ইয়াছিন আলী মিলনায়তনে কক্ষে সকাল ১০টার দিকে দিনব্যাপী কর্মশালা শুরু হয়।

নিউট্রিশন ইউনিট বাংলাদেশ এগ্রিকালচার রিচার্জ কাউন্সিল আয়োজিত এ কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএসআরআইয়ের মহাপরিচালক ড. আমজাড হোসেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুস্পষ্টভাবে বলেছেন, খাদ্যে ভেজাল একটি দুর্নীতি। সরকার নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে কাজ করছে। জনগণকেও সচেতন করতে হবে।

তিনি বলেন, সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। শুধু সরকার একা নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে পারবে না। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আমরা পৃথিবীর অনেক দেশেরই উপরে আছি, তাই আমরা পারবোই।

এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করে পরিচালক নিউট্রিশন বিএসআরসি ড. মো. মনিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, সমস্যা আমরা জানি, কিন্তু আমাদের দরকার সমাধান। দীর্ঘমেয়াদি চিন্তা-ভাবনা করতে হবে। একটি জাতির সুস্বাস্থ্যের সঙ্গে জড়িত উৎপাদন। নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করার চ্যালেঞ্জ রয়ে গেছে। ভেজাল জুস খেয়ে শিশুদের কিডনি নষ্ট হচ্ছে। এজন্য ব্যাপক জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। নাগরিকদের এসব কাজে সম্পৃক্ত করা প্রয়োজন।

তিনি আরও বলেন, সামান্য লাভের আশায় ব্যবসায়ী ও শিল্প উদ্যোক্তারা খাদ্যে ভেজাল মিশিয়ে দিচ্ছে। তাদেরকে বুঝাতে হবে। ভেজাল খাদ্যের ফলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এতে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে রাষ্ট্রই। নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে একটি প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব দিতে হবে।

আরও আলোচনায় অংশ নেন বিএসআরআইয়ের গবেষনা পরিচালক ড. শমজিৎ কুমার পাল।

সেমিনারে ১৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৮৫ জন্য সদস্যকে  হাতে-কলমে খাদ্যের মানদণ্ড অনুসরণ করে নিরাপদ শাক-সবজি, ফলমূল উৎপাদনের বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: