ঢাকা রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০:২৩ অপরাহ্ন

ঈশ্বরদীতে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, পরিবারের অভিযোগ, হত্যা

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৯
প্রতীকী ছবি

ঈশ্বরদী উপজেলার মুলাডুলি ইউনিয়ন থেকে রিক্তা খাতুন (২১) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) রাতে দুবলাচারা এলাকার আবুলের বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ সময় তার গলায় ওড়না পেঁচানো ছিল। ঘটনার পর থেকে স্বামী পলাতক আছেন।

রিক্তার বাবার বাড়ি ছলিমপুর ইউনিয়নের চরমিরকামারী গ্রামে। তার এক বছর বয়সী একটি ছেলে আছে। স্বজনদের অভিযোগ, যৌতুকলোভী স্বামী আবুলের নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে।

পুলিশ জানায়, রাত পৌনে ২টার দিকে উপজেলার মুলাডুলি ইউনিয়নের দুবলাচারা এলাকার আবুলের বাড়ির একটি কক্ষ থেকে মেঝেতে পড়ে থাকা রিক্তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ সময় মরদেহের গলায় ওড়না পেঁচানো ছিল। পরে ময়নাতদন্তের জন্য তার মরদেহ পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

বাবা মিনহাজ উদ্দীন জানান, তিন বছর আগে আবুলের সঙ্গে রিক্তার বিয়ে দেন। বিয়ের পর থেকে আবুল যৌতুক দাবি করতে থাকে। সম্প্রতি সে ব্যবসা করার কথা বলে বাবার বাড়ি থেকে দুই লাখ টাকা এনে দেয়ার জন্য রিক্তাকে চাপ দেয়। রিক্তা এতে অস্বীকৃতি জানানোয় তাদের মধ্যে কলহ লেগেই থাকত।

তিনি অভিযোগ করেন, আবুল ফোন দিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে বলে আপনার মেয়ে অসুস্থ, তাকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে। আধঘণ্টা পর ফের ফোন দিয়ে বলে হাসপাতালে নেয়ার দরকার হবে না অসুস্থ বেশি দেখতে আসেন। তখন সেখানে গিয়ে দেখেন রিক্তা মারা গেছে।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666