ঢাকা শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৫:১০ পূর্বাহ্ন

বৃষ্টি উপেক্ষা করে রূপপুর প্রকল্প ও পাকশী জোড়া সেতুতে মানুষের ঢল

নিজস্ব প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৫ আগস্ট, ২০১৯
পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটি শেষ। কিন্তু শেষ হয়নি ঈশ্বরদীবাসীর ঈদ-আনন্দ। ঈদের দিন থেকে পাকশী জোড়া সেতু এলাকার ভিড় করছে সব বয়সের মানুষ। বুধবার (১৪ আগস্ট) বিকেলে তোলা ছবি।

বৃষ্টিতে ভিজেছিল রাজপথ। বারবার। কিন্তু উত্সবপাগল বাঙালি কি আর ঘরে বসে থাকে? ঈদে ঈশ্বরদীর সব পথের গন্তব্য হয়েছিল পাকশী জোড়া সেতু এলাকা ও নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্প এলাকায়। ছিল হাজার হাজার মানুষের ঢল। পরিবহন সমস্যা এবং বৃষ্টি উপেক্ষা করে সব মানুষ মিলেছিল এখানে। জোয়ারের মতো মানুষের ঢেউ ছিল সেখানে। শহরবাসী মেতেছিল ঈদ-আনন্দে।

ঈদে নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত কিংবা উচ্চ-মধ্যবিত্তের বিনোদনের অন্যতম কেন্দ্র হয়েছিল পাকশী জোড়া সেতু ও রূপপুর এলাকা। শিশুরা মা-বাবা, ভাইবোন, আত্মীয়স্বজন মিলে ঘুরে ঘুরে উপভোগ করে। কিন্তু বুধবার (১৪ আগস্ট) ঈদের চতুর্থ দিন সকাল থেকে শুরু হওয়া গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি আনন্দ অনেকটা ম্লান করে দেয়। আর এখানে কোনো ছাউনি না থাকায় প্রায় সব দর্শককেই কাকভেজা ভিজতে হয়।

সুমন ও রিমন বাঘা উপজেলার আড়ানী থেকে পাকশী জোড়া সেতু এলাকা এসেছিল ঈদের চতুর্থ দিন। দুই ভাইবোন এখান থেকে ওখানে ঘুরে ঘুরে দেখেছে। অভিভাবক তাদের সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছেন। সুমন জানায়, ঈদের সালামি হিসেবে বড় ভাইয়ের কাছে সে আবদার করেছিল পাকশী আসবে।

ঈশ্বরদী মানিকনগর গ্রামের সাইফুল জিতু এসেছেন নববধূ নিয়ে। বললেন, পরিবার-পরিজন নিয়ে আসার মতো এই একটি জায়গাই আছে ঈশ্বরদীতে।

ব্যবসায়ী আইয়ুব আলী বলেন, ‘ঈদের সময় বেড়াতে আসার নানা ঝক্কি। সিএনজিচালিত অটোরিকশা দ্বিগুণ ভাড়া নিয়েছে। তবু বাচ্চার মুখের দিকে তাকিয়ে এসেছি’।

পাকশীর বাসিন্দা আরকে বাবু জানান, ‘বিশেষ দিন মানেই মানুষের প্রাণের মিলন মেলা বসে পর্যটন এলাকা খ্যাত পাক্শীতে। এছাড়াও রেলওয়ে শহর পাকশীতে সুবিশাল এলাকা নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ‘পাকশী রিসোর্ট’ নামের একটি অত্যাধুনিক বিনোদন কেন্দ্র। যেখানে বিনোদনের সকল সুযোগ-সুবিধা রয়েছে পর্যাপ্ত। এই রিসোর্টে ঈদের দিন থেকেই হাজার হাজার মানুষ এসে ঈদের আনন্দ উপভোগ করছে’।

রিসোর্ট কর্তৃপক্ষ জানান, ‘এই রিসোর্টটি পাকশীর সৌদর্যকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নেয়ার পাশাপাশি ছুটি ও বিশেষ দিনে মানুষের বিনোদনের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে।’

পাকশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হক বিশ্বাস জানান, ‘যতই দিন যাচ্ছে ততই পাক্শীর পর্যটন সৌন্দর্য ও গুরুত্ব এবং জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে।’

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: