ঢাকা বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৩৮ পূর্বাহ্ন

যৌতুকের জন্য ঈশ্বরদীর তিশাকে হত্যা, স্বামী গ্রেফতার

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই, ২০১৯
তিশা। পুরনো ছবি

তিশা ও অনিকের বিয়ের বয়স খুব বেশি দিন হয়নি। প্রায় ১ বছর। বিয়ের মধুময় স্মৃতি যেমন এখনো জ্বলজ্বল করছে, তেমনি প্রেমিক স্বামীকে নিয়ে নতুন জীবনের সুন্দর ভবিষ্যতের স্বপ্নময় আগামীর পথে কেবলই পথচলা শুরু হয়েছিল জুলি আক্তার তিশার। এরই মধ্যে যৌতুকের দাবি মেটাতে না পেরে জীবন প্রদীপ নিভে গেল তার। স্বামী অনিকের প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পরও এই ‘বিবাহিত’ প্রকৌশলী যুবকের সঙ্গে প্রেম করে জীবনের গাঁটছড়া বাঁধেন তিশা।

তিশা (২১) ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশী ইউনিয়নের নতুন রূপপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আজাদ প্রামানিকের মেয়ে আর তার স্বামী আতিকুল আলম অনিক (২৮) ঈশ্বরদীর পাকশী ইউনিয়নের দিয়াড় বাঘইল গ্রামের বাসিন্দা পাকশীর প্রয়াত ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে।

রোববার (২১ জুলাই) তিশার স্বামী আতিকুল আলম অনিক চট্রগ্রামের বায়েজিদ বোস্তামি থানার কুলগাঁও টেনারি বটতলা জামশেদ শাহ রোডের ৪র্থ তলা বাসায় তিশাকে যৌতুকের দাবিতে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধে করে হত্যা করে। স্ত্রী তিশাকে হত্যার অভিযোগে ইতোমধ্যে পুলিশ অনিককে গ্রেফতার করেছে। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অনিক তার স্ত্রী তিশাকে হত্যা করার কথা স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

তিশার মা রেহেনা খাতুন বাদী হয়ে বায়েজিদ বোস্তামি থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাব ইন্সপেক্টর আতাউর রহমান খোন্দকার এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তিশার মৃতদেহ চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করে ময়না তদন্ত শেষে সোমবার (২২ জুলাই) ঈশ্বরদীর নতুন রূপপুরে তার গ্রামের বাড়িতে আনা হয়।

মামলার এজাহারে তিশার মা বলেন, যৌতুকের কারণে তিশাকে তার স্বামী অনিক প্রায়ই শারীরিকভাবে নির্যাতন করতো। সর্বশেষ গত ২০ জুলাই রাতে তিশা তার মাকে মোবাইল ফোনে কল করে বলে, ‘মা তোমাদের জামাই আমাকে যৌতুকের টাকার জন্য অনেক বেশি নির্যাতন করতেছে, তুমি টাকার ব্যবস্থা করো, আমি এখানে আর থাকতে পারতেছি না, আমি বাড়ি চলে আসবো।’- এর পরদিন ২১ জুলাই সকাল ৯টার সময় অনিক নিজেই ফোন করে তিশার মৃত্যুর খবর দেয়।

নিজ ঘরে তিশা আত্মহত্যা করেছে বলে স্বামী আতিকুল আলম অনিক প্রচার করলেও স্থানীয় সূত্র ও তিশার বাবা-মা ও পরিবারের লোকজন অভিযোগ করে বলেছেন যৌতুকের দাবি পুরণ না করার কারণে অনিক তিশাকে নির্যাতন করে হত্যা করেছে।

সোমবার পাকশীর রূপপুরে তার বাবার বাড়িতে তিশার মরদেহ আনার পর এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। স্থানীয়রা জানান, অনিকের সঙ্গে তার প্রথম স্ত্রীরও বনিবনা হতোনা। বছর খানেক আগে প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি (ডিভোর্স) হলে নতুন রূপপুরের মুক্তিযোদ্ধা আজাদ প্রামানিকের মেয়ে তিশার সঙ্গে বিয়ে করে অনিক। অভিযোগ রয়েছে বিয়ের পর থেকেই নানা অজুহাতে তিশার বাবার বাড়ি থেকে যৌতুকের টাকা নিত অনিক। টাকা না পেলে তিশাকে শারিরিকভাবে নির্যাতন করতো অনিক।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: