ঢাকা বুধবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৫৩ পূর্বাহ্ন

রায় ঘিরে শঙ্কা না থাকলেও ঈশ্বরদীতে সতর্ক পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২ জুলাই, ২০১৯
ঈশ্বরদীতে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ তথা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। ফাইল ছবি

১৯৯৪ সালে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে হামলার ঘটনায় করা মামলায় রায় ঘোষণার দিন আগামীকাল বুধবার (৩ জুলাই)  ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশনে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় থাকবে পুলিশ। রায়কে কেন্দ্র করে কিংবা রায় বিপক্ষে যাওয়ার আবেগে কোনো পক্ষ যদি নাশকতার চেষ্টা করে তাদের শক্ত হাতে দমনের জন্য প্রস্তুত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তবে রায়ের দিন সন্ত্রাসী হামলার কোনো শঙ্কা নেই বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, রায় ঘোষণার দিন রেলওয়ের সম্পদ রক্ষা ও ট্রেন যাত্রীদের নিরাপত্তার স্বার্থে রেলওয়ে জংশনের চারপাশে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। পশ্চিমাঞ্চলের প্রতিটি ট্রেনে তল্লাশি চলবে, বসানো হবে চেকপোস্ট। এ ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ স্থান চিহ্নিত করে সেখানে পুলিশ সাদা পোশাকে দায়িত্ব পালন করবে। রেলওয়ে জংশনে জুড়ে থাকবে গোয়েন্দা নজরদারি। সব মিলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় একশ সদস্য এই দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে।

ঈশ্বরদী রেলওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুবীর দত্ত বলেন, ‘রায় ঘোষণার দিন কোনো সন্ত্রাসী হামলার কোনো থ্রেট নেই। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সব ধরণের প্রস্তুতি নিয়েছে পুলিশ।  ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশনে পুলিশের কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ও চেকপোস্ট থাকবে।’

দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, আসামিদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য রয়েছেন ঈশ্বরদীর সাবেক পৌর মেয়র ও বিএনপি নেতা মোখলেছুর রহমান বাবলু, পৌর বিএনপির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টু, তৎকালীন পৌর বিএনপির সভাপতি আক্তারুজ্জামান।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ থেকে জানা যায়, শেখ হাসিনা ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর উত্তরাঞ্চলে দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিতে ট্রেনে করে খুলনা থেকে সৈয়দপুর যাচ্ছিলেন। ট্রেনটি ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনে প্রবেশের সময় ওই ট্রেন লক্ষ্য করে বিএনপির স্থানীয় নেতা-কর্মীরা অতর্কিত হামলা চালায়। ট্রেনে গুলিবর্ষণ ও বোমা হামলা করা হয়। এ সময় পুলিশ বিএনপির নেতা-কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য এগিয়ে গেলে পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা হামলা চালানো হয়। ঘটনায় ৫২ জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। গত ২৫ বছরে আসামিদের সাতজন মারা গেছেন। বাকিদের মধ্যে ৩০ জন রোববার (৩০ জুন) আদালতে উপস্থিত হলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান এবং মঙ্গলবার (২ জুলাই) আরও দুই আসামি আদালতে আত্মসমর্পণ করেছেন। সোমবার (১ জুলাই) আদালত মামলার রায় ঘোষণার দিন হিসেবে আগামীকাল বুধবার ধার্য করেন।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
%d bloggers like this: