ঢাকা সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০২:১৫ পূর্বাহ্ন

লকডাউন বাস্তবতায়নে কঠোর অবস্থানে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১
লকডাউন বাস্তবায়নে ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ফিরোজ কবির ছিল কঠোর। ফাইল ছবি

সাতদিনের ‘সর্বাত্মক লকডাউন’ শুরুর দিন থেকেই কঠোরভাবে পালিত হয়েছে ঈশ্বরদীতে। আজ শনিবার সকাল থেকে উপজেলা এই শহরের সড়কগুলো একেবারেই ফাঁকা দেখা গেছে। স্বাস্থ্যসেবা, ফার্মেসি ও নিত্যপণ্যের প্রয়োজনীয় দোকান ছাড়া শপিংমলসহ প্রায় সবধরনের দোকানপাট বন্ধ ছিল সারাদিন জুড়ে।

তবে শনিবার রাতে শহরজুড়ে পুলিশের অবস্থান ছিল চোখে পড়ার মত। লকডাউন যথাযথ ভাবে বাস্তবায়ন করার জন্য শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশের একাধিক সদস্যকে টহল দিতে দেখা গেছে। সেখানে তাঁরা বিভিন্ন যানবাহন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে মানুষদের ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। এসবে নেতৃত্বে দেন ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ফিরোজ কবির। তিনি জানান, সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক লকডাউন নিশ্চিত করার চেষ্টা করছে প্রশাসন। সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টহল দেওয়ার পাশাপাশি মূল শহরের প্রবেশপথে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। আগামীকাল রোববার থেকে আরও কঠোর অবস্থানে থাকবে পুলিশ।

জনগণকে লকডাউন মানাতে পুলিশের টহল। শনিবার (১৭ এপ্রিল), ঈশ্বরদী শহরের রেলগেট এলাকা। 

এদিকে রাস্তায় দু’একটি রিকশা, মোটরসাইকেল এবং জরুরি সেবার গাড়ি ছাড়া কোনো গণপরিবহনের চলাচল ছিল না বললেই চলে। এছাড়া বেশ কয়েকজনকে পায়ে হেঁটে চলাচল করতে দেখা গেছে। শহরজুড়ে পুলিশের বসানো চেকপোস্টগুলাতে তাদের থামিয়ে জেরা করা হচ্ছে। পুলিশ তাদের পরিচয়, কোথা থেকে কোথায় যাচ্ছেন, কী প্রয়োজনে যাচ্ছেন ইত্যাদি বিষয়ে প্রশ্ন করেছেন।

গাড়ির জন্য অপেক্ষারত পথচারী শিমুল জানান, তিনি ঈশ্বরদী থেকে পাবনা সদরে যাবেন। এজন্য তিনি মুভমেন্ট পাসও সংগ্রহ করেছেন। তবে রাস্তায় গাড়ির পরিমাণ খুবই কম হওয়াতে তিনি বিপাকে পড়েছেন।

আরেক পথচারী সুমন আলী বলেন, তিনি তার পরিবারের জন্য প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য কিনতে বাজারে গিয়েছিলেন। তবে, সেগুলা কিনে ফেরার পথে, কোনো যানবাহন পাচ্ছিলেন না। যে রিকশাতে করে তিনি ফিরেছেন, সেখানেও অতিরিক্ত ভাড়া রাখা হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট পিএম ইমরুল কায়েস বলেন, ‘জরিমানা করার থেকে জনগণকে সচেতন করার বিষয়েই মনোযোগী আমরা।’

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, লকডাউন কার্যকর, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও সরকারের সব নির্দেশনা পালনে সকাল-সন্ধ্যা উপজেলার বাজার-ঘাট, বিভিন্ন গ্রামের দোকানপাট ও লোকালয়ে থানা পুলিশ একযোগে ব্যাপক তৎপরতা অব্যাহত রেখেছেন।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর