ঢাকা শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৯:৫৫ পূর্বাহ্ন

ঈশ্বরদী থানায় গিয়ে বেধড়ক মারধরের শিকার সাংবাদিক: এসআই ক্লোজড

ঈশ্বরদীনিউজ২৪.নেট, প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ৩ মে, ২০১৯
প্রতিবাদ সভায় বক্তব্যে দেন ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বপন কুমার কুন্ডু

 

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবসের প্রাক্কালে দৈনিক ভোরের পাতা ও অনলাইন বিটিসি নিউজের ঈশ্বরদী প্রতিনিধি সাংবাদিক ময়নুল ইসলাম মিন্টুকে থানায় আটকে স্যান্ডেল দিয়ে বেধড়ক মারধর ও কান ধরে উঠবস করানোর ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার (১ মে) থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী এবং পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) শাহীন মোহাম্মদ অনু ইসলাম এই ঘটনা ঘটিয়েছেন।

ঘটনাটি জানাজানি হলে বিক্ষোভ ফেটে পড়েন ঈশ্বরদীর সর্বস্তরের সাংবাদিকবৃন্দ। ওইদিন রাতেই প্রেসক্লাব মিলনায়তনে জরুরী সভা করে পুলিশে উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি অবগত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানানো হয়। তখন ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জহুরুল হক ঘটনার সত্যতা শিকার করে সুষ্ঠু সমাধানের আশ্বাস দেন।

এরপর বৃহস্পতিবার (২ মে) রাতে প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সাংবাদিকদের এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকী ও এসআই শাহীন মোহাম্মদ অনু ইসলামের শাস্তি দাবী করে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেয়া হয়। ২৪ ঘন্টা পার না হতেই শুক্রবার (৩ মে) দুপুরে এসআই শাহীন মোহাম্মদ অনু ইসলামকে পাবনা পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে বলে পুলিশ সুত্র নিশ্চিত করেছেন।

ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বপন কুমার কুন্ড’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় নির্যাতনের শিকার সাংবাদিক মিন্টু জানান, বুধবার সকালে থানায় সংবাদ সংগ্রহকালে এসআই শাহীন মোঃ অনু ইসলামের বক্তব্য মোবাইলে রেকর্ড করার সময় তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ৪ দফা বেদম প্রহার করে এবং মোবাইল ফরমেট করে সকল তথ্য মুছে দেয়। এসময় ডিজিটাল ও তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা দায়েরের হুমকী দেয়া হয়। এক পর্যায়ে থানার ওসি কক্ষে তাঁকে নেওয়া হলে তিনি তাঁকে কান ধরে উঠবস করতে বাধ্য করেন। এসময় ওসি হুমকি দেন, যদি পুলিশের বিরুদ্ধে আর কোনদিন কোন নিউজ করলে তোর নামে ৪-৫ টি মামলা দিয়ে সারা জীবনের জন্য জেলে ঢুকিয়ে দেয়া হবে।’

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর