ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১৭ অপরাহ্ন

ঈশ্বরদীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিম স্মরণে দোয়া মাহফিল: ‘বাবা হত্যার বিচারের জন্য যদি মরতে হয় মরবো’

নিজস্ব প্রতিবেদন
  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
দোয়া মাহফিলে বক্তব্য রাখেন তার ছেলে তানভীর রহমান তন্ময়।

দুর্বৃত্তদের ছোড়া গুলিতে নিহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) আসরের নামাজের পর  ঈশ্বরদীর পাকশী বিবিসি বাজারের সড়কে মুক্তিযোদ্ধা জনতা কমিটির আয়োজনে এসব হয়।

মুক্তিযোদ্ধা জনতা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি গোলাম মোস্তফা চান্না মন্ডলের সভাপতিত্বে ও ঈশ্বরদী মুক্তিযোদ্ধা শহীদ স্মৃতি পাঠাগারের সভাপতি ফজলুর রহমান ফান্টুর সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্যে দেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাস, পৌর সভার মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালেক, তহুরুল আলম মোল্লা, সিরাজ উদ্দিন বিশ্বাস, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ইছাহক আলী মালিথা, পাকশী ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি সাইফুজ্জামান পিন্টু, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা ইসতিয়াক আহমেদ লিন ও নিহত মুক্তিযোদ্ধার সন্তান তানভীর রহমান তন্ময়।

মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিমের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দোয়া মাহফিলে নিহত মুক্তিযোদ্ধার সন্তান তানভীর রহমান তন্ময় বলেন, আজকে চোখের পলকে আমার বাবা হত্যার এক বছর পূর্ণ হল। এ হত্যা কান্ড নিয়ে কত সভা সমাবেশ-মানববন্ধন করেছে মুক্তিযোদ্ধারা। এখন অনেক মুক্তিযোদ্ধা এসেছেন অনেকে নেই। কিছু মানুষ চোখ এবং মনের আড়াল হয়ে গেছে। তবে একটি বছরে আমি পাকশী ও রূপপুরের কিছু মানুষের চরিত্র সম্পর্কে বুঝলাম।

তিনি বলেন, আজ এক বছর অতিবাহিত হওয়ার পরও মুক্তিযোদ্ধা হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী কেন গ্রেফতার হয় না। তাই আপনাদের ৪৮ বছরের স্বাধীন বাংলাদেশের মাটিতে একটি মুহূর্ত আর নিঃশ্বাস নিতে ইচ্ছে করে না।

অনুষ্ঠানে আবেগাপ্লুত হয়ে তানভীর রহমান তন্ময় বলেন, আমার বাবা হত্যার রক্তের দাগ শুকায় নাই। বাবা হত্যার বিচারের জন্য যদি মরতে হয় মরবো, তবে যারা হত্যা করেছে তাদের বিচার হবে।

উল্লেখ্য, গেল বছরের ৬ ফেব্রুয়ারি রাত ৯টার সময় পাকশী ইউনিয়নের বিবিসি বাজার থেকে নিজ বাড়িতে প্রবেশের মুহূর্তে পাকশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাাফিজুর রহমান সেলিমকে ওঁত পেতে থাকা আততায়ী গুলি করে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে ঈশ্বরদী হাসপাতালে এবং পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান সেলিমের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর