ঢাকা রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০২:১২ অপরাহ্ন

ঈশ্বরদীতে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তি গ্রেপ্তার

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত: রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
ঈশ্বরদীর ম্যাপ

ঈশ্বরদীতে আট বছরের এক মেয়েশিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাঁর নাম রেজাউল ইসলাম ওরফে কালু (৩৮)।

শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে শহর থেকে পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। ধর্ষণের শিকার শিশুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) রাতে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে শিশুটির মা বাদী হয়ে ঈশ্বরদী থানায় রেজাউল ইসলামের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা করেন। গত বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে।

গ্রেপ্তার রেজাউল ইসলাম ঈশ্বরদী উপজেলার সাঁড়া ইউনিয়নের গোকুলনগর এমএম পাটকলের একজন শ্রমিক। তাঁর বাড়ি কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার গোলাপনগরে। বাবার নাম বিল্লাল হোসেন। রেজাউল ইসলামের স্ত্রী এবং আট বছর ও তিন বছর বয়সী দুই মেয়ে আছে। শহরের শৈলপাড়ায় একটি ভাড়া বাড়িতে স্ত্রী-কন্যাদের নিয়ে তিনি থাকতেন।

মামলার এজাহার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহীর বাঘা উপজেলার দীঘায় শিশুটির মা–বাবার বাড়ি। শিশুটির মা পাটকলের শ্রমিক। ঘটনার দিন গত বৃহস্পতিবার মেয়েকে একা রেখে তিনি কাজের জন্য যান। দুপুরে বাড়িতে শিশুটিকে একা পেয়ে ফুসলিয়ে নিজের ঘরে এনে রেজাউল ধর্ষণ করেন। কাজ শেষে মা বাড়ি ফিরে মেয়েকে অসুস্থ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। ভয়ে সে কোনো কথা বলছিল না। শিশুটির মা জানায়, অনেক রাতে মেয়ে তাঁর কাছে বিষয়টি খুলে বললে তিনি স্থানীয়ভাবে চিকিৎসার ব৵বস্থা করেন।

ঈশ্বরদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) অরবিন্দ সরকার জানান, ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর গতকাল রাতে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় পুলিশ রেজাউলকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে শিশুটিকে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তির জন্য পাঠানো হয়।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, ধর্ষণের অভিযোগে রেজাউলের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ৯ (১) ধারায় ঈশ্বরদী থানায় মামলা হয়েছে।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর