ঢাকা সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৩:০৭ পূর্বাহ্ন

ঈশ্বরদীতে বিএনপির পাল্টা আহ্বায়ক কমিটি গঠন, প্রকাশ্য হয়ে উঠেছে বিরোধ

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ৮ নভেম্বর, ২০১৯
প্রতীকী ছবি

দলকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা নিয়ে শুরুতেই হোঁচট খেয়েছে বিএনপি। ঈশ্বরদী উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা দেওয়ার মাত্র সাত দিনের মাথায় দলের বড় একটি অংশের নেতারা পাল্টা আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেছেন। এর মধ্য দিয়ে নেতা-কর্মীদের বিরোধ প্রকাশ্য হয়ে উঠেছে।

উপজেলা বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, রেল শ্রমিক দলের কেন্দ্রীয় নেতা আহসান হাবীবকে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক, খায়রুল ইসলাম যুগ্ম-আহ্বায়ক ও পৌর বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টুকে সদস্য সচিব এবং কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক পৌর মেয়র মোকলেসুর রহমান ওরফে বাবলুকে আহ্বায়ক, এস এম ফজলুর রহমানকে যুগ্ম-আহ্বায়ক ও শ্রী বিষ্টু সরকারকে সদস্য সচিব করে পৌর বিএনপির যথাক্রমে কমিটি ঘোষণা করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) বিকালে শহরের ললিতকলা একাডেমি মিলনায়তনে বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা করা হয়।

এ সময় বিএনপি নেতা খায়রুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম, এস এম ফজলুর রহমান, সুমার খাঁন, আমিনুর রহমান স্বপন, আতাউর রহমান পাতা, যুবদল নেতা সুলতান আলী বিশ্বাস টনি, আক্তার হোসেন নিফা, জাকির হোসেন জুয়েল, ছাত্রদল নেতা আওয়াল কবীর, মেহেদী হাসান, স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা মামুনুর রশিদ নান্টু ও মাহামুদ হাসান সোনামনিসহ অসখ্য নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ১ নভেম্বর উপজেলার সাহাপুর শহীদ আবুল হাশেম উচ্চ বিদ্যালয়ে মাঠে নেতা কর্মীদের পরামর্শ সভায় সাবেক এমপি আব্দুল বারী সরদারকে আহ্বায়ক ও জিয়াউল ইসলাম সন্টু সরদার, হাসিবুর রহমান হাক্কে মন্ডল, জহুরুল ইসলাম ও আব্দুস সামাদ সুলভ মালিথাকে যুগ্ম আহবায়ক করে উপজেলার বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও পাবনা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান হাবিব। এ নিয়ে সিনিয়র নেতারা অভিযোগ করেন, মনগড়া কমিটি করে তারেক রহমানের নির্দেশনাকে উপেক্ষা হয়েছে। এ ধরনের কমিটি গঠন করে দলের মধ্যে নতুন সমস্যার সৃষ্টি করেছে। তাদের অগঠনতান্ত্রিক আচরণে তারা হতাশ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে পৌর বিএনপির একাধিক নেতা বলেছেন, কেন্দ্রের নির্দেশ উপেক্ষা করে হাবিব নিষ্ক্রিয় নেতাকর্মীদের নিয়ে পকেট কমিটি করেছেন। ত্যাগী ও মামলা-হামলার শিকার নেতা-কর্মীরা দলে স্থান না পেলে সামনে বিএনপি নেতৃত্ব শূন্য হয়ে যাবে।

এ বিষয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য সাবেক সাংসদ সিরাজুল ইসলাম সরদার বলেন, যারা নিজেদের স্বার্থে দলকে ব্যবহার করতে চায় তারা সময়ের ব্যবধানে এমনি ঝরে পড়ে যাবে। আর, যারা দলকে ভালোবাসে তারাই আগামীতে দলে থাকবে।

তবে, জেলা বিএনপি নেতাদের পাল্টা অভিযোগ, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টার নাম ব্যবহার করে দল অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে কেউ কেউ।

এদিকে, সদ্য ঘোষণা করা কমিটিকে দেউলিয়া উল্লেখ করে দলে বিভক্তির কথাও স্বীকার করে চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপির আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, কেউ যদি দলের সিদ্ধান্ত লঙ্ঘনের চেষ্টা করে তবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর