ঢাকা সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০১:৩৫ পূর্বাহ্ন

ঈশ্বরদীতে ছেলেধরা সন্দেহে নারীকে পুলিশে সোপর্দ

মেহেদী হাসান তুষার
  • প্রকাশিত: সোমবার, ২২ জুলাই, ২০১৯
ঈশ্বরদীর ম্যাপ

ঈশ্বরদীতে ছেলেধরা সন্দেহে মিনারা নামের মানসিক প্রতিবন্ধী নারীকে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

সোমবার (২২ জুলাই) রাত আটটায় ছলিমপুর ইউনিয়নের মানিকনগর পূর্বপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।  প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পরে ওই নারীকে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে ধারণা করছে পুলিশ। আটক নারীর বাড়ি পাবনা সদর থানার ঘোষপুর গ্রামে।

সলিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবদুল মজিদের বরাতে জানা যায়, মানিকনগর পূর্বপাড়া গ্রামের জনৈক আল্লেক ব্যাপারীর বাড়ির একটি ঘরে ঢুকে পরে উদ্‌ভ্রান্ত নারী। এ সময় তাঁর ঘরে দেড় বছরের নাতি রাহি ঘুমিয়ে ছিল। তা দেখেই ছেলেধরা বলে চিৎকার করতে থাকেন পরিবারের সদস্যরা। তখন আশপাশের লোকজন জড়ো হয়ে তাঁকে ছেলেধরা সন্দেহে পিটুনি দিয়ে আটকে রাখে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার করে থানায় নেয়। এতে মিনারার সঙ্গে থাকা পলিথিন ব্যাগ থেকে কিছু ওষুধ ও একটি টিনের চাকু উদ্ধার হয়।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী বলেন, ‘লোকজন জড়ো হয়ে ওই নারীকে হালকা পিটুনি দিয়েছে। আটক ওই নারীর কথাবার্তা ও আচরণে প্রাথমিকভাবে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে মনে হয়েছে। পুলিশ এ বিষয়ে আরও তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেবে।’

ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: জহুরুল হক বলেন,  ‘আটক নারী ছেলেধরা কি না, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। সারাদেশে এখন ছেলেধরা আতঙ্ক বিরাজ করছে। এ বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির চেষ্টা চলছে। এলাকায় কাউকে সন্দেহ হলে আইন নিজের হাতে তুলে না নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে খবর দিতে বলা হয়েছে।’

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর