ঢাকা সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৪:১৪ পূর্বাহ্ন

ঈশ্বরদীতে ছেলেধরা গুজব: বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত: বুধবার, ২৪ জুলাই, ২০১৯
পুরনো ছবি

সারা দেশের মতো ছেলেধরা গুজবে আতংকিত ঈশ্বরদী উপজেলার অভিভাবকরা। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি বিদ্যালয়ে ছেলেধরা আতংকে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমছে। চিন্তিত অভিভাবকরা নিজের সন্তানকে নিয়ে হাজির হচ্ছেন বিদ্যালয়ে। স্থানীয়রা ছেলেধরা সন্দেহে তিন জনকে আটক করলেও বাস্তবেতার সত্যতা না পাওয়ায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে থানা পুলিশের পক্ষ থেকে স্থানীয়দের সচেতন করতে নানা ধরনের সচেতনতামূলক কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। বিদ্যালয়গুলোতে পুলিশের পক্ষ থেকে সচেতনমূলক সভা করা হচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শহররের বেশ কয়েকটি বিদ্যালয়ে গত কয়েকদিন ধরে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমেছে। ঈশ্বরদী সাউথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, স্কুলপাড়া মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফতেমোহাম্মদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নবীনগর ১১ নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, চামটিয়া ভাটপাড়া সকরারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৬৩ নং নূতন রূপপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বেশ কয়েকটি বিদ্যালয়ে আতংকিত পরিবার তাদের সন্তানদের পাঠাচ্ছেন না।

স্কুলপাড়া মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম বলেন, গত দু’দিন ধরে বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমে গেছে। ছেলেধরা গুজব আতংকে তারা সন্তানদের পাঠাচ্ছেন না। আমরা তাদের এ বিষয়ে সচেতন করার চেষ্টা করছি।

এদিকে ছেলেধরা গুজবে আতঙ্কিত না হতে স্কুল পর্যায়ে সচেতনামূলক সভা করছে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ। বুধবার (২৪ জুলাই) সকালে বাঁশেরবাদা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক কাটাতে সচেতনমূলক সভা করা হয়েছে।

ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: জহুরুল হক উপস্থিত শিক্ষার্থী ও অভিবাকদের সঙ্গে কথা বলেন। এসময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামসুল ইসলামসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।

মো: জহুরুল হক অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সারাদেশে কিছু স্বার্থন্বেষীমহল ছেলেধরা গুজব ছড়াচ্ছে। যা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

কোথাও কোনো অস্বাভাবিক কাউকে দেখলে পুলিশকে অবহিত করতে অনুরোধ জানান তিনি।

ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমরা দফায় দফায় বৈঠক করেছি। স্থানীয়দের সচেতন করতে স্কুল, কলেজে সচেতনমূলক সভা করা হচ্ছে। মাইকিং, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও প্রচারণা চলছে। ছেলেধরার বিষয়টি সম্পূর্ণ গুজব। এর কোনো ভিত্তি নেই। যা ঘটছে তা গুজবের কারণে।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর