ঢাকা বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৪:০৮ অপরাহ্ন

ঈশ্বরদীতে কোরবানির সংগ্রহ করা মাংসের জমজমাট বাজার

বার্তাকক্ষ
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৩ আগস্ট, ২০১৯
কোরবানির সংগ্রহ করা মাংসের বাজার।

আলিম মিয়া, বাড়ি কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার গোলাপ নগর গ্রামে শহরে। প্রতি বছর কোরবানির ঈদে স্ত্রী রোজিনাকে নিয়ে ঈশ্বরদী শহরে আসেন মাংস সংগ্রহ করতে। শহরের বিভিন্ন বাসা বাড়ি থেকে সংগ্রহ করা মাংস সন্ধ্যায় বিক্রি করে রাতের ট্রেনে ফিরে যান বাড়িতে।

এবারো তারা সংগ্রহ করেছেন প্রায় ১২ কেজি মাংস। বিক্রি করেছেন ৩ হাজার হাজার ২৪০ টাকায়। এটা তাদের ঈদ উপলক্ষে বাড়তি আয়।

আলিম ও রোজিনার মতো কয়েক শো নারী পুরুষ ও শিশু ঈদের দিন দুপুরের মধ্যে পৌঁছে যান ঈশ্বরদী শহরে। সন্ধ্যার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত ব্যাগ নিয়ে বাড়ি বাড়ি ঘুরে মাংস সংগ্রহ করেন। আর এসব সংগ্রহ করা মাংস বিক্রির জন্য অস্থায়ী বাজার বসে শহরের রেলস্টেশন, ঈশ্বরদীর প্রধান বাজার ছাড়াও শহরের বিভিন্নস্থানে।

সোমবার (১২ আগস্ট) সন্ধ্যার আগে শহরের বাজারে মাংস কিনতে এসেছেন উমিরপুর এলাকার মুদি দোকানি বাবুল মিয়া। তিনি জানান, আগামী শুক্রবার তার ছেলের বিয়ে। কম দামে মাংস পাওয়া যায় ভেবে এখানে এসেছেন। কিন্তু দোকানের মতো এখানেও মাংসের কেজি চাওয়া হচ্ছে ৫০০ টাকা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন পুলিশ কনস্টেবল জানান, এবার কোরবানি দিতে পারেননি। ছুটিতেও গ্রামের বাড়ি যেতে পারেননি। তিনি ২৬০ টাকা দরে ৬ কেজি মাংস কিনেছেন।

এসব মানুষ ছাড়াও বিভিন্ন হোটেল মালিক এবং ফুটপাতে কাবাব বিক্রেতারা এখান থেকে মাংস কিনে নিয়ে গিয়ে মজুদ করে রাখেন।

অস্থায়ী মাংস বিক্রির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দুই ঘণ্টার এই বাজারে মাংস মেপে দেয়ার জন্য ডিজিটাল মেশিন নিয়ে বসেছেন কয়েকজন। তারা ১০ টাকার বিনিময়ে ব্যাগসহ মাংস মেপে দিচ্ছেন।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২১
 
themebaishwardin3435666
error: © স্বত্ব ঈশ্বরদী নিউজ টুয়েন্টিফোর