ঢাকা মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০, ০৫:৩১ পূর্বাহ্ন

আদালতে মামলার বাদীকে মারধরের অভিযোগ আসামিপক্ষের আইনজীবীদের বিরুদ্ধে

বগুড়া প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৪ মার্চ, ২০২০
প্রতীকী ছবি

বগুড়ায় আদালতের বিচারকক্ষের ভেতরেই মজনু রহমান নামে এক ব্যক্তিকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে কয়েকজন আইনজীবীর বিরুদ্ধে। মেয়েকে অপহরণ মামলার বিচার চাইতে আদালতে গিয়ে মারধরের শিকার হন মজনু। অভিযুক্তরা সবাই আসামিপক্ষের আইনজীবী।

রবিবার (২২ মার্চ) দুপুরে বগুড়ার প্রথম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালত কক্ষে ঘটনাটি ঘটে। এ বিষয়ে সোমবার আদালত ও পুলিশ সুপারের কাছে বার কাউন্সিলের এক সদস্যসহ তিন আইনজীবীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী মজনু।

আদালতের বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) নরেশ মুখার্জী ও অন্যান্য কয়েকজন আইনজীবী ঘটনাটির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আদালত ও পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগে সোনাতলা উপজেলার সুজাইতপুর গ্রামের মজনু রহমান উল্লেখ করেছেন, ২০১১ সালের ১১ আগস্ট সকালে প্রতিবেশী কয়েকজন সহযোগীকে নিয়ে জাকিরুল ইসলাম তার স্কুলছাত্রী মেয়েকে অপহরণ করে। ওই ঘটনায় তিনি থানায় মামলা করেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দেন। মামলাটি (নং-১৬৬/১১ নারী) বগুড়ার প্রথম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন।

সম্প্রতি আসামিপক্ষের আইনজীবী বার কাউন্সিলের সদস্য রেজাউল করিম মন্টু সাড়ে ৩ লাখ টাকার বিনিময়ে মামলাটি মীমাংসার উদ্যোগ নেন। গত ২২ মার্চ শুনানির দিনে তিনি মীমাংসার বিষয়টি আদালতকে জানালে আসামিকে ওই টাকা পরিশোধের নির্দেশ দেন আদালত। কিন্তু আসামিপক্ষের কাছ থেকে টাকা নিলেও বাদীকে তা দিতে অস্বীকৃতি জানান আইনজীবী রেজাউল করিম মন্টু।

বাদী বিষয়টি আদালতকে জানান।

লিখিত অভিযোগে তিনি আরও উল্লেখ করেন, বেলা সাড়ে ১২টার দিকে বিচারক এজলাস ত্যাগ করলে মোস্তফা কামাল প্রিন্স ও নাফরু নামে দুইজন আইনজীবীকে সঙ্গে নিয়ে এজলাসে ঢুকে বাদীকে আক্রমণ ও মারপিট করেন মন্টু। এতে তিনি রক্তাক্ত জখম হন। এ সময় মন্টু বলেন, ‘‘তোর টাকা চাওয়ার সাধ মিটাইয়া দিলাম।’’ আদালতের বাইরে থাকা স্বজনরা ছুটে এসে তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। বাড়ি ফিরে যাওয়ার পরে মুঠোফোনের মাধ্যমে তাদেরকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আইনজীবী রেজাউল করিম মন্টু।

তার দাবি, তিনি কাউকে মারপিট করেননি। তবে এক জুনিয়রের সঙ্গে বাদী খারাপ ব্যবহার করলে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে। টাকা নিয়ে মামলা মীমাংসার বিষয়টিও তিনি অস্বীকার করেছেন।

বাদী মজনু রহমান তাকে জড়িয়ে মিথ্যাচার করছেন বলেও দাবি করেন তিনি।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২০
 
themebaishwardin3435666