ঢাকা মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০, ০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন

অল্পের জন্য রক্ষা পেল সাড়ে আটশ লঞ্চ যাত্রী

তানজিল হাসান, মুন্সীগঞ্জ
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৪ মার্চ, ২০২০
গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর রাতে মেঘনায় লঞ্চ ও কার্গোর মুখোমুখি সংর্ঘষের ঘটনায় কার্গোটি নদীতে ডুবে যায়। ফাইল ছবি

মুন্সীগঞ্জের চরকিশোরগঞ্জে মেঘনা নদীর চরে গ্রিন ওয়াটার-১০ নামে ঢাকার সদরঘাট থেকে ছেড়ে আসা চাঁদপুরগামী একটি লঞ্চ জরুরিভিত্তিতে নোঙর করেছে।

ধারণক্ষমতার দ্বিগুণ যাত্রী নেওয়ার কারণে মেঘনার ঢেউয়ের তোড়ে লঞ্চটিতে পানি উঠে পড়ে। এ সময় তড়িঘড়ি করে লঞ্চটি নদীর চরে নোঙর করতে সমর্থ হয় চালক। এতে করে প্রাণে রক্ষা পেয়েছে প্রায় সাড়ে আটশ যাত্রী। বোগাদাদিয়া-৯ লঞ্চের মাধ্যমে প্রায় শতাধিক যাত্রীকে নিরাপদে গন্তব্যে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার (২৩ মার্চ) রাত সাড়ে আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনিচুর রহমান বাংলানিউজকে এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, অতিরিক্ত যাত্রীবোঝাই করার কারণে এ ঘটনা ঘটে। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। লঞ্চটি নদীর চরে নোঙর করা হয়েছে। এখন অন্য একটি লঞ্চ ঢাকা থেকে রওনা হয়েছে। সেটি এলে যাত্রীদের সেই লঞ্চে করে গন্তব্যে পাঠানো হবে।

নারায়ণগঞ্জের কলাগাছিয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, লঞ্চের ধারণক্ষমতা প্রায় ৪শ যাত্রীর। কিন্তু, প্রায় সাড়ে আটশ যাত্রীবোঝাই করে মেঘনা নদীতে আসার পরে লঞ্চটির ডেকে পানি উঠে যায়। চালক তড়িঘড়ি করে লঞ্চটি চরে নোঙর করতে সমর্থ হয়। কোনো যাত্রী হতাহতের হয়নি। এখন বিকল্প হিসেবে অন্য লঞ্চের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, যদিও লঞ্চের স্টাফরা দাবি করছেন বাল্কহেডের ধাক্কায় লঞ্চে পানি উঠেছে। কিন্তু, প্রাথমিকভাবে আমাদের তা মনে হয়নি। অতিরিক্ত যাত্রীর কারণেই লঞ্চটি ডুবতে বসেছিল।

শেয়ার করুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৩ - ২০২০
 
themebaishwardin3435666